বিজেপিতে উৎখাত করে ২১-শের বাংলায় ফের ক্ষমতায় ফেরার হুংকার দিলেন তৃণমূল নেত্রী। ভারচুয়াল সভা থেকে একেবারে দিলীপ ব্রিগেডকে সমূলে উপড়ে ফেলার কথা বললেন মমতা।  যদিও তৃণমূল নেত্র্রীর এই সভাকে পাল্টা কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না বিজেপির রাজ্য় সভাপতি। দিলীপ ঘোষ বলেন, এটাই দিদির শেষ একুশে জুলাই।

মঙ্গলবার নিউ টাউনের ইকো পার্কে মর্নিং ওয়াকে গিয়েছিলেন মেদিনীপুরের সাংসদ। সেখানে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, যারা শহিদদের রক্তের বিনিময়ে সরকারে এল, তারা এখন বিরোধী রাজনৈতিক দলের কর্মী আর সাধারণ মানুষকে শহিদ করছে।

গতকালই বিজেপির  রাজ্য সভাপতি জানিয়েছিলেন, তৃণমূলের ২১শে জুলাইয়ের পাল্টা এবার প্রহশন দিবস পালন করবে বিজেপি।  আজ রাজ্যের জায়গায় জায়গায় কালো পতাকা, কালো ব্যাজ পরে তৃণমূলের গণতন্ত্র হত্য়ার প্রতিবাদ জানাবে বিজেপি। মঙ্গলবার নিউ টাউনের ইকো পার্কে মর্নিং ওয়াকে গিয়েছিলেন মেদিনীপুরের সাংসদ। সেখানে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, যারা শহিদদের রক্তের বিনিময়ে সরকারে এল, তারা এখন বিরোধী রাজনৈতিক দলের কর্মী আর সাধারণ মানুষকে শহিদ করছে।

এ প্রসঙ্গে মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ১৯৯৩ সালে বাম জমানায় গুলিতে নিহত শহিদদের স্মরণে মুখ্যমন্ত্রী শহিদ দিবস পালন করেন। বর্তমানে শহিদ দিবস পালনের অধিকার মুখ্যমন্ত্রী হারিয়েছেন। কারণ রাজ্য়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে নিজে যে আন্দোলন করেছিলেন, ক্ষমতায় বসে তার রাজ্য়েই প্রতিনিয়ত সেই গণতন্ত্র লুঠ হচ্ছে। রাজনৈতিক বিরোধীদের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। তাই তৃণমূলের শহিদ দিবস এখন কেবল প্রহসনে পরিণত হয়েছে। সেকারণে রাজ্য়ে ২১ জুলাইয়ের পাল্টা প্রহসন দিবস পালন করবে বিজেপি।

এই বলেই অবশ্য় থেমে থাকেননি রাজ্য় বিজেপির কান্ডারি। তিনি  বলেন, রাজ্য়ে বিজেপির নেতা-কর্মীরা একের পর এক খুন হচ্ছে। সম্প্রতি হেমতাবাদে বিধায়ক খুন হয়েছেন। চোপড়ায় কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে মহিলাদের সুরক্ষা নেই। এখন সময় এসেছে, রাজ্যবাসী ঠিক করুক কতদিন এই সরকার রাখা যায়। এদিকে, দিলীপ  ঘোষের এই বক্তব্য় কানে তুললেন না তৃণমূল সুপ্রিমো। পাল্টা একুশের ভারচুয়াল সভা থেকে তার হুংকার, ২০২১ বিধানসভায় ফের ক্ষমতায় আসছে তৃণমূলই। দেশকে এক নতুন দিশা দেখাবে শাসক দল। করোনার কারণে এ বছর সেভাবে পাল করা যায়নি এই বিশেষ দিন। তবে আগামী বছর আরও বড় করে এই আয়োজন হবে।