একেই বলে খ্যাতির বিড়ম্বনা। 'ছপক' অভিনেতা  বিক্রান্ত মাসের ভক্তের সংখ্যা গুনে শেষ করা যাওয়া না। কিন্তু তা বলে বিয়ের আসর ছেড়ে বউ দেখা করতে আসবেন, এও হতে পারে! বাস্তবে এমনটাই হল বিক্রান্ত মাসের সঙ্গে। 

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, বিয়ের আসর ছেড়ে বিক্রান্ত মাসের সঙ্গে দিল্লির সাকেটে দেখা করতে ছুটে আসেন এক মহিলা। সেই সময়ে বিক্রান্ত ছবির শ্যুটিং করছিলেন। রীতিমতো হইহই করে শ্যুটিংয়ের মাঝে হাজির হন সেই মহিলা ভক্ত। জেদ ধরে বসেন, যতক্ষণ না পর্যন্ত তিনি বিক্রান্তের দেখা পাওয়া যাচ্ছে, ততক্ষণ কোনও ভাবেই তিনি সেট ছেড়ে যাবেন না। 

শ্যুটিং ইউনিটেরই একজন বলেন, সেটে যথেষ্ট পরিমাণে নিরাপত্তা বজায় রাখা হয়। সেই সময়েই বিয়ের কনের পোশাকে এক মহিলা এসে হাজির হন। তিনি এসে কান্নাকাটি জুড়ে দেন এবং বিক্রান্তের সঙ্গে দেখা করতে চান। নিরাপত্তা রক্ষীরা বিক্রান্তের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার ব্যাপারে তাঁকে আটকে দিলে তিনি বলেন, অভিনেতার সঙ্গে দেখা না করলে তিনি বিয়েটাই করবেন না। এক ঘণ্টা ঠাঁয় বসে থাকার পরে বিক্রান্ত তাঁর সঙ্গে এসে দেখা করেন এবং বিয়ের আসরে ফিরে যাওয়ার জন্য বুঝিয়ে বলেন তাঁকে। কিন্তু সেই ভক্ত নাছোড়াবন্দা। তিনি শ্য়ুটিং সেটেই বসে থাকেন। শেষ পর্যন্ত নিরাপত্তা রক্ষীদেক সহায়তায় ও পুলিশকে খবর দিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়। 

পুরো ঘটনা সামাল দিতে ৪ ঘণ্টা শ্যুটিং থামিয়ে রাখতে হয় বলে জানা গিয়েছে। বিক্রান্ত সংবাদমাধ্যমের কাছে জানান, প্রথমে আমি বুঝতে পারিনি কী ভাবে রিয়্য়াক্ট করব। প্রথমটায়ে আমি খুব বিনয়ী ছিলাম। আমি চিন্তায় ছিলাম ও নিরাপদে বিয়ের আসরে ফিরল কি না। মানুষ আমার কাজ ভালোবাসলে ভাল লাগে। কিন্তু মাঝে মধ্যে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যায়। আর এটা তো অদ্ভুত একটা ঘটনা। 

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি মেঘনা গুলজারের ছপক ছবির শ্যুটিং শেষ করলেন বিক্রান্ত। এই ছবিতে অ্যাসিডা আক্রান্ত লক্ষ্মী আগারওয়ালের ভূমিকায় অভিনয় করছেন দীপিকা পাডুকোন।