গঙ্গাসাগর যাত্রীদের কাঠ-কয়লার উনুন ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করল প্রশাসন। কলকাতার বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্য়ই এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শনিবার কলকাতা পুলিশের সঙ্গে পুরসভার কর্তাদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে। 

এত দিন  ভিন রাজ্য থেকে আসা পুণ্যার্থী ও সাধুসন্তদের দল গঙ্গাসাগর মেলায় যাওয়ার আগে, বাবুঘাট লাগোয়া এলাকায় বিভিন্ন ক্যাম্পেই আশ্রয় নিত। আর সেখানেই চলত কাঠ-কয়লার উনুনে, কয়েক দিন ধরে রান্নাবান্না।  রাতে শীত কমানোর জন্য় কাঠ ও কয়লায় আগুন জ্বেলে তাপ নিতেন শিবিরে আশ্রয় নেওয়া পুণ্যার্থীরা। বাতাসে বিষের নিরিখে কলকাতা মাঝেমধ্যে  দিল্লিকেও টেক্কা দিচ্ছে। তাই এই অবস্থায় শহর কলকাতায় দূষণ নিয়ন্ত্রণে, কাঠ-কয়লার উনুন নিয়ন্ত্রণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে পুণ্যার্থী ও সাধুসন্তরা শিবিরে থাকাকালীন, সেখানে রান্নার জন্য বিকল্প ব্যবস্থার ব্যাপারে প্রশাসন এখনও স্পষ্ট ভাবে কিছু বলেনি।

মেয়র ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, বাইরে থেকে আসা পুণ্যার্থীদের রান্নার জন্য বিকল্প কী ব্যবস্থা নেওয়া যায়, সেটা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা চলছে। নির্দিষ্ট সময়ে তা জানিয়ে দেওয়া হবে। এ দিনের পুলিশ-পুরসভা বৈঠকে পুণ্যার্থীদের জন্য আরও কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

কলকাতা পুরসভা তরফে, বাবুঘাট সংলগ্ন এলাকায় পুণ্যার্থীদের জন্য় কিছু ব্য়বস্থা নেওয়া হয়েছে। মূলত এই স্থানে যেহেতু অনেক পুণ্যার্থীই এসে থাকেন। তাই সেখানে বিশেষ কন্ট্রোল রুম খোলা হবে। আর কন্ট্রোল রুমে বাস, ট্রেন, হাসপাতাল-সহ বিভিন্ন জরুরি পরিষেবার খোঁজখবর পাওয়া যাবে। মহিলাদের পোশাক বদলানোর জন্য এ বার নির্দিষ্ট  জায়গা করা হয়েছে। থাকবে বায়ো টয়লেটের ব্যবস্থাও। পর্যাপ্ত জলের ব্য়বস্থার পাশাপাশি নিরাপত্তার জন্য বসানো হচ্ছে অসংখ্য় সিসিটিভি। বিপুল সংখ্যক পুলিশও মোতায়েন করা হবে ।