গত লোকসভা ভোটের আগে কলেজে ভর্তিকে কেন্দ্র করে দুর্নীতি এবং ছাত্র বিড়ম্বনা রুখতে রীতিমতো বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল তৃণমূল সরকার। শিক্ষাঙ্গনে হিংসা রুখতে তৃণমূলের তদানীন্তন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর এই পদক্ষেপকে কুর্ণিশ জানিয়েছিল অনেকে। তবে সদিচ্ছার মাশুল গুণতে হয়েছে তাঁকে। রাতারাতি ফের চালু হয়েছে পুরনো নিয়ম। বছর বছর কলেজে ছাত্র ভর্তি নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ জলভাত হয়ে গিয়েছে।  পাঁচ বছর পেরিয়ে পরবর্তী লোকসভা ভোটের মরশুম ফের হাজির। শুরু হতে চলেছে কলেজে কলেজে ভর্তি। সিবিএসই বোর্ডের রেজাল্টও বেরিয়ে গিয়েছে। টালবাহানা কাটিয়ে গত বছর থেকেই ফের শুরু হয় অনলাইন অ্যাডমিশন প্রক্রিয়া। তবে পরিকাঠামো ছিল না অনেক কলেজেই। অনলাইনে ফর্ম জমা হলেও নথিপত্র যাচাইয়ের মতো বিষয়গুলি  হাতে হাতেই করতে বাধ্য হয়েছে কলেজগুলি।  এ বছরও  কলেজই  অনলাইনে ছাত্র ভর্তি প্রক্রিয়া তাই কলেজগুলির পরীক্ষাও।
 
প্রসঙ্গত ভবানীপুর এডুকেশন সোসাইটি, দক্ষিণ কলকাতার এই নামী কলেজটি রবিবার থেকেই শুরু করে দিয়েছে ছাত্রদের ফর্ম ফিলাপের প্রক্রিয়া। সোমবার থেকে ফর্ম ফিলাপ শুরু হচ্ছে সেন্ট জেভিয়ার্স বিশ্ববিদ্যালয়ে। ১৫ থেকে ফর্ম দেওয়া হবে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত লেডি ব্রেবোর্ন কলেজে। 

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, এ বছর বেশির ভাগ কলেজই অনলাইনে টাকা জমা দেওয়ার ব্যবস্থা করবে।