দেড়শো পরিবারের বাস। তার মধ্যে রয়েছেন নানা ধর্ম, নানা সংস্কৃতির মানুষ। কিন্তু দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার রাজপুরের দিশারী মেগাসিটি আবাসনের পুজোয় ধর্ম, বর্ণ ভুলে হাত লাাগান সবাই। আর সবার এই সম্মিলিত প্রচেষ্টাতেই এবার চতুর্থ বর্ষে  পা দিল দিশারী মেগাসিটির পুজো। মাত্র চার বছরেই আবাসনের পুজোর ক্ষেত্রে নিজেদের সুনাম ছড়িয়ে দিতে পেরেছেন দিশারীর বাসিন্দারা। 

দিশারীর পুজো মানেই সেখানে রান্নাবান্নার নিয়ে আলাদা উৎসাহ থাকে। চারদিনের ভূঁড়িভোজের আয়োজন তো থাকেই, তার সঙ্গে পঞ্চমীর দিন আনন্দমেলা নামে মহিলাদের জন্য একটি অনুষ্ঠান কর হয়। যেখানে আবাসনের বাসিন্দা মহিলারা নিজের সেরা পদগুলি রান্না করে উপস্থাপনা করেন। পুজোর চারদিন হইহুল্লোড়ের শেষ বেলা সিঁদুরখেলায় মেতে ওঠেন আবাসনের মহিলারা। সেখানেও সব সম্প্রদায়য় এবং সংস্কৃতির সদস্যরাও সামিনল হন। 

তবে শুধু  দুর্গাপুজো নয়, এই আবাসনের বাসিন্দারা বছরের প্রতিটি গুরুত্বপূ্র্ণ দিনও একইভাবে উদযাপন করেন। তার মধ্যে প্রজাতন্ত্র দিবস, দোল, স্বাধীনতা দিবসের মতো নানা অনুষ্ঠান থাকে। এর পাশাপাশি রক্তদান শিবির, গরিবদের বস্ত্রদানের মতো কর্মসূচিও নেন উদ্যযক্তারা।