মমতা বন্দোপাধ্যায় চিকিৎসকদের দেখে নেওয়ার হুমকি দেওয়ার পরেই তেড়েফুঁড়ে উঠেছে চিকিৎসকদের আন্দোলন। চিকিৎসকেরা জানিয়ে দিয়েছেন নতিস্বীকার করবেন না তাঁরা। এবার সাগর দত্ত মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গণ ইস্তফা দিলেন চিকিৎসকরা। এর পাশাপাশি এক শিশুর মৃত্যুতে পরিস্থিতির আরও অবনতি  হয়েছে।
 
সব মিলিয়ে ধুন্ধুমার পরিস্থিতি সাগর দত্ত মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সাগর দত্ত মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেই শিশুটির ম‌ৃত্যু হয়েছে। গত ১১ জুন জন্মের পরেই শিশুর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। সাগর দত্ত মেডিকেল কলেজের চিকিৎসকেরা জানায়, শিশুকে ভেন্টিলেশনে রাখতে হবে। কিন্তু জুনিয়র ডাক্তারদের কর্মবিরতির ফলে  শিশুটিকে কোনও হাসপাতালে ভর্তি করতে পারেনি তাঁর বাবা মা। শিশুর বাবা অভিজিৎ মল্লিক জানালেন, ডাক্তারদের কর্মবিরতি ফলেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। স্বাস্থ্য ভবন কোন ভাবে সহযোগিতা করেনি তাঁর পরিবারের সঙ্গে। হাসপাতালে হাসপাতালে ঘুরেও কোনও পরিষেবাই পাননি তাঁরা। মায়ের কোলেই মৃত্যু হয়েছে শিশুটির।

এদিন সকাল থেকেই দফায় দফায় উত্তেজনা তৈরি হয়েছে সরকারি হাসপাতালগুলিতে।  হাসপাতাল সুপারের নির্দেশে পুলিশের উপস্থিতিতে জরুরি বিভাগের গেটের তালা ভেঙে চালু করা হয়েছে জরুরি পরিষেবা। কিন্তু বেলা বাড়তেই বন্ধ হয়েছে সেই পরিষেবাও। মমতা বন্দ্যেপাধ্যায় চিকিৎসকদের কর্মবিরতি ভাঙার সময় দেওয়ার পরে রোষের আগুন বেড়েছে। চিকিৎসকদের গণ ইস্তফায় কার্যত ভেঙেই পড়েছে এই কলেজের মেডিসিন বিভাগ।  হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাঁদের অনুরোধ করেছেন, নিজের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করতে।