ক-দিন আগে এক স্কুল শিক্ষিকার দূরন্ত নাচের দৃশ্য় ভাইরাল হয়েছিল। এবার বর্ধমান ডেন্টাল কলেজের ডাক্তার ও হবু ডাক্তারদের একেবারে রাস্তায় ওপর নাচতে দেখা গেল।

শুক্রবার কার্জন গেটের সামনে বর্ধমান ডেন্টাল কলেজের ছাত্রছাত্রীরা একটি অনুষ্ঠান করলেন। এটি ছিল তাঁদের বার্ষিক অনুষ্ঠান। তারই অংশ হিসেবে পড়ুয়া ও ডাক্তাররা ফ্লাশ মবে মেতে ওঠেন এদিন। পথচলতি মানুষেরাও দাঁড়িয়ে গেলেন অনুষ্ঠান দেখতে।  অনুষ্ঠানের নাম সেনসেশন। প্রতিবছরই হয়। মহম্মদ আমদানুল হক জানান,  "এবছর প্রথম ফ্ল্য়াশ মব হয়। ডাক্তার ও রোগীদের মধ্য়ে যে দূরত্ব তৈরি হয়েছিল, এই ঐতিহাসিক কার্জন গেটের  তলায় দাঁড়িয়ে আমরা সেই দূরত্ব দূর করার চেষ্টা করলাম।"  কিন্তু জরুরি পরিষেবা ফেলে দিয়ে ডাক্তাররা যদি অনুষ্ঠানে আসেন, তাহলে রোগীদের কী হবে? উত্তরে আমদানুল জানালেন, "আমরা কিন্তু জরুরি পরিষেবা দিয়েই এসেছি। এখনও হাসপাতালে কিছু ডাক্তার রয়েছেন।"

প্রসঙ্গত, গত বছর নীলরতন সরকার হাসপাতালে জুনিয়র ডাক্তার নিগ্রহের ঘটনায় রাজ্যজুড়ে শুরু হয় ডাক্তারদের কর্মবিরতি। শেষে মুখ্য়মন্ত্রীর হস্তক্ষেপে সেই জুনিয়র ডাক্তারদের কর্মবিরতি ওঠে। এদিকে তার প্রেক্ষিতে শুরু হয় বিতর্ক। ডাক্তাররা বলেন, রোগীর মৃত্য়ু হলে বেশিরভাগ সময়েই তাঁদের কিছু করার থাকে না। অথচ কিছু না-বুঝেই চিকিৎসক নিগ্রহ চলে। অন্য়দিকে রোগীর পরিজনদের অনেকসময়েই অভিযোগ থাকে, এ কথা ঠিকই যে অনেকসময়েই কিছু করার থাকে  না চিকিৎসকদের। কিন্তু আবার অনেকক্ষেত্রে তাঁরাও কিন্তু যথেষ্ট অবহেলা করেন। যার ফলে রোগী মৃত্য়ুর ঘটনা ঘটে।

এমবস্থায় এই প্রজন্মের ডাক্তার ও হবু ডাক্তারদের এই উদ্য়োগকে স্বাগত জানালেন স্থানীয়রা। তবে সেই সঙ্গে কেউ কেউ প্রশ্ন তুললেন, ডাক্তার-রোগীর সম্পর্ক ভালো করতে একেবারে রাস্তার ওপর নাচগান কি দৃষ্টিকটূ ঠেকল না?