নাকতলা উদয়ন সংঘের এবার ৩৩তম বর্ষে পা। বিগত বেশ কয়েক বছর ধরেই তা কলকাতাবাসীর কাছে দূর্গাপুজোর এক অন্যতম আকর্ষণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতীমা থেকে মণ্ডপ পরিকল্পনা, নতুনত্বর ছোঁয়া থাকে আদ্যপান্ত জুড়ে। শহরের বুকে সেরার সেরা পুজোকমিটির মধ্যে বিগত বেশ কয়েকবছর ধরে লড়াই চলছে জোড় কদমে। এবলে আমায় দেখ ও বলে আমায়।

আর সেই সূত্রেই এবার তড়িঘড়ি মাঠে নামা। একে একে খুঁটিপুজো সারার পর্ব শুরু হল শহর জুড়ে। হাতে আর মাত্র পাঁচ মাস, এরই মাঝে কতটা প্রস্তুতি নিল নাকতলা উদয়ন সংঘ তারই আভাস মিলল খুঁটিপুজোর আসরে। ইতিমধ্যেই অধিকাংশ পরিকল্পনা করার কাজ সেরেছে নাকতলা, মায়ের বোধন থেকে শুরু করে কার্নিভাল, নতুনত্বরে ছোঁয়ায় এবার নজর কাড়বে নাকতলা। এই পুজোর সঙ্গে গত একবছর ধরে নিজেকে যুক্ত করেছেন অভিনেত্রী ঋতুপর্না সেনগুপ্ত। এবছর পুজোর উদ্বোধন থেকে শুরু করে কার্নিভালের শোভাযাত্রায় নাকতলার সঙ্গে প্রতিমূহুর্তেই থাকছেন তিনি।

এবারেও শিল্পী ভবতোষ সুতারের হাতে সেজে উঠছে প্রতীমা, মণ্ডপ। ইতিমধ্যেই শিল্পীর কর্মশালায় প্রতীমা গড়ার কাজ এগিয়েছে অনেকটাই। মণ্ডপ চত্বরে প্রথম খুঁটিটা পোতা হল মঙ্লবার অক্ষয়তৃতীয়ার শুভ লগ্নেই, এই মাসের শেষেই শুরু হয়ে যাবে মণ্ডপ গড়ার কাজও। আবহ সঙ্গীত প্রস্তুতির কাজও চলছে পুরোদমে, এবার কবির সুমনের গলায় শোনা যাবে নাকতলার থিম সং। তবে এবারের চমক নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ পুজোকমিটির সাধারণ সম্পাদক বাপ্পাদিত্য দাশগুপ্ত, তার মতে সব চমকটাই এবার তোলা রইল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জন্য, তবে প্রস্তুতি এবার খানিক অন্যভাবে নেওয়া। যা অনান্য বছরের ভাবনাকেও ছাপিয়ে যাবে এমনটাই আশা রাখি।