উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার রেজাল্ট বের হবে আগামী ২৭ মে। তার আগেই অবশ্য শুরু হয়ে গিয়েছে ছাত্র ভর্তির প্রক্রিয়া কেননা অন্য বোর্ডের রেজাল্ট বেরিয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই।  ছাত্র ভর্তি নিয়ে ফি-বছর বেনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে রাজ্য সরকারের যে পরিমাণ মুখ পুড়েছে তাকেই এবার সাফ করতে চাইছে রাজ্য শিক্ষা দফতর। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বেনিয়ম, তোলাবাজি রুখতে কড়া পদক্ষেপের কথা জানিয়ে দিলেন। এ বছর আর অতীতের মতো ভর্তি চলাকালীন ফর্ম যাচাই বা অন্য কোনও কারণে কলেজ চত্বরে ফর্ম পূরণ করার জন্যে ছাত্রছাত্রীদের ডাকা যাবে না। অর্থাৎ পুরোদস্তুর অনলাইন ফর্ম ভরার প্রক্রিয়া শুরু করতে চলেছে রাজ্য সরকার।

বছর বছর কলেজে ছাত্র ভর্তি নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ জলভাত হয়ে গিয়েছে এখন।  সিবিএসসি বোর্ডের রেজাল্টও বেরিয়ে গিয়েছে। টালবাহানা কাটিয়ে গত বছর থেকেই ফের শুরু হয় অনলাইন অ্যাডমিশন প্রক্রিয়া। তবে পরিকাঠামো ছিল না অনেক কলেজেই। অনলাইনে ফর্ম জমা হলেও নথিপত্র যাচাইয়ের মতো বিষয়গুলি  হাতে হাতেই করতে বাধ্য হয়েছে কলেজগুলি।

 এ বছরও  কলেজই অনলাইনে ছাত্র ভর্তি প্রক্রিয়া তাই কলেজগুলির পরীক্ষাও। সোমবার রাজ্যের সমস্ত কলেজের অধ্যক্ষদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এখানে নথি যাচাই ছাড়াও ভর্তি-সংক্রান্ত সমস্ত কাজই অনলাইনে করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। নথি যাচাইযের জন্যও কিন্তু পড়ুয়াদের ক্যাম্পাসে ডাকতে পারবে না কলেজ কর্তৃপক্ষ। শিক্ষামন্ত্রীর নির্দেশ, নতুন শিক্ষাবর্ষের ক্লাস শুরু হওয়ার পর পড়ুয়াদের নথি যাচাই করতে হবে। তখন যদি নথিতে কোনও ভুল ধরা পড়ে, সেক্ষেত্রে ভর্তি বাতিল হয়ে যাবে।