রাজ্য়ে আমফান পরবর্তী সময় সামাল দিতে অস্বস্তি বাড়ছে রাজ্য সরকারের। মফসসল তো দূর,বিদ্যুতের দেখা নেই খোদ কলকাতা ও বৃহত্তর কলকাতার বহু অংশে। ঘূর্ণিঝড়ের চারদিন পরেও বিদ্যুৎ না পেয়ে রাস্তায় নেমেছে মানুষ। অবশেষে সিইএসসি নিয়ে মুখ খুললেন মুখ্য়মন্ত্রী।

কেন রাজ্য়ের সিইএসসি এলাকায় বিদ্যুৎ নেই সেই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এতে রাজ্য় সরকারের কিছু করার নেই।  সিপিএমএর আমল থেকেই সিইএসসি একটি প্রাইভেট সংস্থা। কেন্দ্রীয় সরকার সিপিএম-এর আমলেই ওই বেসরকারি সংস্থাকে বিদ্যুতের দায়িত্ব দিয়েছে। আমাদের আমলে সিএসসি দায়িত্ব পায়নি। তবে ওদেরও কর্মীর অভাবে কাজ করতে সমস্যা হচ্ছে। সমস্যাটাও মানুষকে বুঝতে হবে।

রাজ্য়ের পরিস্থিতি বলছে, বিদ্য়ুৎ,জল না পেয়ে খোদ শহরের বহু জায়গায় বিক্ষোভে নেমেছে সাধারণ মানুষ। খোদ বিক্ষোভের মুখে পড়ে ঘরে ফিরতে হয়েছে সাংসদ অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্য়ায়কে। কাকদ্বীপে মুখ্য়মন্ত্রী  প্রশাসনিক বৈঠকে অংশ নিতে বেরিয়েছিলেন তিনি।  কিন্তু টানা দেড় ঘণ্টা বিক্ষোভের মুখে পড়ে উল্টো পথে হাঁটা দিতে হয় তাকে। এদিন রাস্তায় রাস্তায় বিক্ষোভ নিয়েও মুখ খোলেন মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, এলাকায় অশান্তি পাকাতে উসকানিও দেওয়া হচ্ছে। উসকানিতে পা দেবেনা। ধৈর্য্য় ধরুন। জানা গিয়েছে, সিইএসসির ভূমিকা নিয়েও চরম ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী। বিদ্যুৎ পরিষেবা স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত সিইএসসি-কে বিভিন্ন এলাকায় জেনারেটর বসিয়ে পরিষেবা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।