যাদবপুরের শ্লীলতাহানি কাণ্ডে নয়া মোড়। গাড়ি করে তরুণীকে বাড়ি পৌছানোর সময় শ্লীলতাহানি কাণ্ডে অভিযুক্ত হলেন ২১ বছর বয়সী ইভেন্ট ম্যানেজার। তরুণী রাজেশ রায় এবং সৌরভ রায় গাড়িতে উপস্থিত দুজনের বিরুদ্ধেই অভিযোগ করেছেন।

প্রসঙ্গত মঙ্গলবার রাতে বন্ধুর বাড়িতে জন্মদিনের পার্টি থেকে বাড়ি ফেরার সময় বিক্রমগড়ে গাড়ির মধ্যেই শ্লীলতাহানি করা হয় মহেশতলার এক যুবতীর।  জানা গিয়েছে, যাদবপুরে বান্ধবীর আমন্ত্রণে জন্মদিন বাড়িতে গিয়েছিল ওই যুবতী। সেখানেই আরও দুই বান্ধবীর বয়ফ্রেণ্ড সহ মোট পাঁচজন তারা প্রথমে অ্যাক্রপলিস এবং তারপর রুবি যায়। এবং তারপরে বাড়ি ছাড়তে আসার নাম করে যুবতীকে গাড়িতে করে আনা হচ্ছিল মহেশতলায়।অভিযোগ, ঠিক সেই সময়ই  এই ঘটনাটি ঘটে। বারবার বারণ করা সত্ত্বেও ওই তিন যুবক তাকে উত্ত্যক্ত করছিল। নানা অছিলায় বারবার যুবতীর গায়ে স্পর্শ করেছিল ওই তিন যুবক। সাউর্দাণ এভিনিউ এবং শরৎ বোস রোডের মাঝেই ওই তরুণীর শ্লীলতাহানি  করা হয়। এরপরেই গাড়ি থেকে নেমে পড়েন ওই তরুণী এবং ভবানিপুর থানায় পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন।


অপরদিকে, ৩০ ডিসেম্বর ওই গাড়িটি উদ্ধার করা হয়  লেকগার্ডেসে অভিযুক্তের বাড়ির কাছ থেকে। নির্যাতিতা তরুণী জানিয়েছেন, ভাল লাগছিল না বলে ওই গাড়ি সফরে আমি যেতে চাইছিলাম না। কিন্তু আমার বন্ধুর বয়ফ্রেন্ড এবং এক কমন ফ্রেন্ড গাড়িতে উপস্থিত ছিল। আমি আমার বান্ধবীর সঙ্গে মাঝের সিটে বসি। গাড়িটি চালুর পর শুরু থেকে নির্দিষ্ট রাস্তা ধরে যাচ্ছিল না এবং এমনই সময়ে অভিযুক্তরা আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে। স্পর্শ করার চেষ্টা করে, এমনকি চুম্বনের চেষ্টাও করে তারা। এমন সময় আমি কল করতে পারছিলাম না। তাই আমি আমার অবস্থান ফোনের মাধ্যমে বন্ধুকে শেয়ার করি। তারপর যেভাবেই হোক আমি বাধা দিয়ে গাড়ি থামাই', বলে জানিয়েছেন ওই  তরুণী।