করোনা পরিস্থিতির জন্য এবার জানুয়ারি মাসে হচ্ছে না কলকাতা বইমেলা। উল্লেখ্য, ২০২১ এর ২৭ জানুয়ারি থেকে ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্য়ে বইমেলা হওয়ার কথা ছিল। তবে এইমুহূর্তে বাংলার কোভিড অবস্থার দিকে তাকিয়েই  পিছিয়ে গেল কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলা।


বইমেলার গিল্ড কর্তা ত্রিদিব চট্টোপাধ্য়ায় বলেছেন, বিশ্বের বেশ কিছু জায়গায় পুনরায় লকডাউন জারি করা হয়েছে। করোনায় ভয়াবহ পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পিছিয়ে গেল কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলা।বইমেলার গিল্ড কর্তা ত্রিদিব চট্টোপাধ্য়ায় বলেছেন, কোভিড-১৯ এর প্রকোপে পৃথিবী জুড়ে অতিমারির কারণে গত মার্চ ২০২০ থেকে এখনও পর্যন্ত আন্তর্জাতিক উড়ানের ওপর বিধিনিষেধ জারি রয়েছে, রাজ্যের স্কুল-কলেজ বন্ধ এবং ইতিমধ্যেই অনেক ইউরোপীয় দেশ দ্বিতীয় দফার কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে।  করোনায় ভয়াবহ পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পিছিয়ে গেল কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলা। বিভিন্ন দেশে থেকে প্রকাশক আসেন কলকাতায়। এটা কলকাতা বইমেলার অন্যতম বৈশিষ্ট্য। যার দরুন বিদেশী বই এর স্টল বন্ধ করা সম্ভব নয়। আন্তর্জাতিক বইমেলার আয়োজক হিসেবে আমরা খবর পেয়েছি, লন্ডন, আমেরিকা, প্যারিসের আন্তর্জাতিক বইমেলাগুলিও নির্ধারিত তারিখ থেকে পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।'
 

গিল্ড কর্তা ত্রিদিব চট্টোপাধ্য়ায় আরও বলেন, 'আমরা, পাবলিশার্স অ্যান্ড বুকসেলার্স গিল্ড-এর সদস্যরা অত্যন্ত আশাবাদী এবং দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে আমাদের দেশের গর্ব ৪৫ তম আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা ২০২১ আমরা আয়োজন করে উঠতে সক্ষম হব। কিন্তু বর্তমান অস্বাভাবিক পরিস্থিতির কারণে আমরা কিছুসময়ের জন্য বইমেলা পিছিয়ে দিতে বাধ্য হচ্ছি। আমরা আপনাদের আশ্বস্ত করছি, যে মুহূর্তে পরিস্থিতি অনুকূল হবে, আমরা ইন্টারন্যাশনাল পাবলিশার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্মতি নিয়ে আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা ২০২১-এর পরিবর্তিত তারিখ ঘোষণা করব।'