রাজ্য়ে পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করতে গিয়ে 'হিমশিম' খেল মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের সরকার। মঙ্গলবার বিকেল থেকে রাতের মধ্য়ে তিন বার ঘোষণা করা হল অগস্টের পূর্ণ  লকডাউনের তারিখ। মুখ্য়মন্ত্রী ঠিক করার পরেও রাতে নবান্ন থেকে ফের বদল করা হল পূর্ণ লকডাউনের দিনক্ষণ। যা দেখে খোঁচা দিতে ছাড়লেন না বিরোধীরা।

এদিন বিকেলেই একদফা অগস্টের লকডাউনের তারিখ ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। তার এক ঘণ্টার মধ্যে ফের সেই তালিকা বদল করেন তিনি। রাতে আরও একবার তালিকায় বদল করা হয়। স্বরাষ্ট্র দফতর থেকে টুইট করে জানিয়ে দেওয়া হল, ২ আর ৯ তারিখ লকডাউন হচ্ছে না রাজ্য়ে। অর্থাৎ বকরি ইদের পরেরদিনও রাজ্য়ে পূর্ণ লকডাউন থাকছে না। স্বাভাবিকভাবেই মমতা সরকারের এই ঘোষণায় বিভ্রান্তি বেড়েছে রাজ্য়বাসীর। 

স্বরাষ্ট্র দফতরের টুইটে বলা হয়েছে, ২ ও ৯ অগস্ট লকডাউন হবে না রাজ্য়ে। এর কারণ স্বরূপ রাজ্য় সরকার জানিয়েছে,  লকডাউনের তালিকা ঘোষণা করার পরই বিভিন্ন গোষ্ঠীর তরফে এই তারিখ বদলের অনুরোধ আসতে থাকে সরকারের কাছে। অনেকেই জানায় বেশকিছু  সম্প্রদায়ের উৎসব পড়েছে ওই দুদিন। সেকারণে সাধারণ মানুষের ভাবাবেগকে গুরুত্ব দিয়ে ২ ও ৯ অগস্ট  লকডাউন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য় সরকার। 

রাজ্য় রাজনৈতিক মহল বলছে, ৩ অগস্ট রাখি পূর্ণিমা। সেকারণে ২ তারিখের লকডাউন তুলে নিচ্ছে রাজ্য। যদিও কারও কারও যুক্তি ১অগস্ট এমনিতেই বকরি  ইদের জন্য বকডাউনের তারিখ পরিবর্তন করেছে রাজ্য় সরকার। তাই ২ তারিখও সেই একই কারণে লকডাউন করা হল না। 

নতুন তালিকা অনুযায়ী, ৫ অগস্ট বুধবার, ৮ অগস্ট শনিবার, ১৬ অগস্ট রবিবার, ১৭ অগস্ট সোমবার, ২৩ অগস্ট রবিবার, ২৪ অগস্ট সোমবার এবং ৩১ অগস্ট সোমবার লকডাউন হবে রাজ্য়ে। অর্থাৎ ৯ দিনের জায়গায় সাতদিন। প্রথমবার তালিকা পরিবর্তনের সময় মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন,গণেশ চতুর্থীর মতো কিছু উৎসব ক্যালেন্ডারে মার্ক করা ছিল না। তাই প্রথম তালিকা করতে ভুল হয়েছিল।