দেশ জুড়ে ঝড় তুলে দিয়েছ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্য। সেই ঝড় এবার আছড়ে পড়ল রাজধানীতে। 

পশ্চিমবঙ্গেরর চিকিৎসকদের কর্মবিরতির সমর্থনে, সারা দেশের ডাক্তারদের নিরাপত্তার দাবিতে এইমস-এর রেসিডেন্সিয়াল ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশানের তরফে প্রতীকি বিক্ষোভ দেখালেন। সুরক্ষার দাবিতে এদিন কর্মরত চিকিৎসকেরা হেলমেট পরে  প্রতিবাদ জানান। মাথায় ব্যান্ডেজ বেধে তাঁরা জানান দেন, এনআরএস-এর পাশেই আছেন।

একই সঙ্গে আগামীকাল কর্মবিরতিরও ডাক দিয়েছেন তাঁরা। দেশের সমস্ত সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকদের কর্মবিরতির জন্য়ে অনুরোধ করা হয়েছে। তাঁদের সঙ্গে কথা বলছেন এইমস-এর অধিকর্তা।  

কাল দিল্লিতে এইমসএর বহির্বিভাগ বন্ধ থাকবে জানানো হচ্ছে।  প্রসঙ্গত, এদিন এসএসকেএম-এ মমতা বন্দোপাধ্যায় আসার পরে স্লোগানিং করতে থাকেন জুনিয়র ডাক্তাররাও। রীতিমতো ব্যরাকিং-এর মুখে পড়েন মমতা। মমতা  ওই জায়গা থেকেই বলেন, 'আজই ডাক্তারদের যোগ দিতে হবে। হাসপাতালে কোনও বহিরাঘত থাকবে না। ঘাড়ধাক্কা দিয়ে বের করা হবে। কাজে যোগ না দিলে ডাক্তাররা হোস্টেল ছেড়ে দিন।'  আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকিও দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন পরিষেবা চালু না করলে কড়া পদক্ষেপ নেবে সরকার, পরিষেবা দিতেই হবে যে কোনও মূল্যে ।  মমতা চলে যাওয়ার পর থেকেই তুলকালাম শুরু হয় ফের। চিকিৎসকরা জানিয়ে দেন নতি স্বীকার করতে রাজি নন তাঁরা।