কলকাতা বিমানবন্দরে ইতিমধ্য়েই পৌছে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাঁকে স্বাগত জানাতে এয়ারপোর্টে গেলেন রাজ্য়পাল জগদীপ ধনখড় রয়েছেন ফিরহাদ হাকিম ও দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়। সারাদিন ধরেই প্রধানমন্ত্রীর রয়েছে একাধিক কর্মসূচি। মোদী-মমতা বৈঠকেরও সম্ভাবনাও রয়েছে।  আজ সন্ধ্য়ে সাড়ে ৭টার পর মিলেনিয়াম পার্ক থেকে নদীপথে জেটি ধরে বেলুড় মঠে পৌঁছবেন প্রধানমন্ত্রী।  শহর জুড়ে বিক্ষোভের আশঙ্কায় নিশ্ছিদ্র করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা।  

আরও পড়ুন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক সেরেই ধর্মতলার বিক্ষোভে, ভারসাম্যের রাজনীতি মমতার

সূত্রের খবর , শনিবার নদীপথে জেটিঘাট পেরিয়ে বেলুড় মঠে প্রেসিডেন্ট মহারাজের ঘরে যাবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই পথ দিয়ে সাধারণ মানুষের যাতায়াতের অনুমতি নেই। স্বামী বিবেকানন্দ-র মন্দিরেও যাবেন প্রধানমন্ত্রী। আগামিকাল স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন। এদিন ভোরবেলায় বেলুড় মঠে ধ্যানে বসবেন তিনি।  আজ রাত সাড়ে আটটা নাগাদ মঠে পৌঁছবেন মোদী। সেখানে ঘণ্টাখানেক থেকে জলপথে ফিরে এসে তাঁর রাজভবনে থাকার কথা ছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছেতেই সেই পরিকল্পনা বদল করা হয়েছে। মঠেই তাঁর জন্য রাতের খাবারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন, জাঁকিয়ে ঠান্ডা কলকাতায়, তাপমাত্রা একলাফে নামল ২ ডিগ্রি


সূত্রে জানা গিয়েছে,  প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে আগে থেকেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজভবনে পৌঁছে গিয়েছিলেন।  ইতিমধ্য়েই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে স্বাগত জানিয়েছেন  মুখ্যমন্ত্রী।  সন্ধ্য়ে ৬টা নাগাদ  হেলিকপ্টারে বদলে তাঁর সড়কপথেই বিবাদী বাগে এসে পৌঁছনোর কথা। বিবাদী বাগে ওল্ড কারেন্সি বিল্ডিংয়ে সাড়ে ৫টা থেকে ৬টা ৫০ পর্যন্ত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী। পুরাতত্ত্ব বিভাগের একটি প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন তিনি। সন্ধে ৭টা থেকে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত মিলেনিয়াম পার্ক থাকবেন নরেন্দ্র মোদী। হাওড়া সেতুর ওপর তৈরি একটি আলোকধ্বনি  উদ্বোধন করবেন তিনি। তারপরেই বেলুড়মঠের উদ্দেশ্য়ে রওনা দেবেন দেশের প্রধানমন্ত্রী।