দোকান থেকে এসে পরিবারের লোকজন দেখলেন মেয়ের গলায় ফাঁস লাগানো। রবিবার পূর্ব যাদবপুরে এক কিশোরীর অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। ইতিমধ্যেই তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

সূত্রের খবর, রবিবার সকালে ওই কিশোরীর বাবা,মা দোকান থেকে বাড়িতে ফিরে দেখেন খাটের ওপর গলায় গামছার ফাঁস দেওয়া অবস্থায় নিথর দেহ পড়ে আছে কিশোরীর। প্রথমে নিজের চোখে ঘটনাটি বিশ্বাস করতে পারছিলেন অভিভাবকরা। পরে ধাতস্থ হতেই ঘটনার সম্পর্কে জানতে পারেন প্রতিবেশীরা।   

তবে মৃত্য নিয়ে ইতিমধ্য়েই শুরু হয়েছে প্রশ্নচিহ্ন। অনকেই এই আত্মহত্যাকে খুন বলে ভাবছেন। মৃতদেহের গামছার ফাঁসের  ওপরের অংশ কোথাও বাঁধা না থাকায় সন্দেহ আরও দানা বেধেছে। ১২ বছরের কিশোরীর দেহ উদ্ধার করে ইতিমধ্য়েই ময়নাতন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ।

ময়নাতন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরই কীভাবে মৃত্যু তা স্পষ্ট হওয়া যাবে বলেই মত তদন্তকারীদের। পাশাপাশি খেলতে গিয়ে কোনোভাবে ফাঁস লেগে  মৃত্যু কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ বিষয়ে লালবাজারের হোমিসাইড শাখা তদন্ত শুরু করছে।।