ফণী-র দাপট থেকে মুক্তি পাওয়া মাত্রই পুনরায় নাভিশ্বাস গরমে। শহরের বুক জুড়ে ক্রমেই বাড়তে থাকে গরমের তেজ। রবিবার থেকেই বাড়তে থাকা তাপমাত্রার পারদসীমা চরমে পৌঁচ্ছল বৃহস্পতিবার।

বৃহস্পতিবার দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা পৌঁচ্ছায় ৩৯ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। বাতাসে আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমান ৭০ শতাংশ। দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রি। স্বস্তি মিলছে না এখনি জানালো আবহাওয়া দপ্তর। আরো দুদিন রাজ্য জুড়ে চলবে গরমের দাপট। আগামী ৪৮ ঘন্টায় তাপমাত্রা আরও বৃদ্ধি পাবে বেশ কয়েকটি জেলায়।  পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, বীরভূম ও ঝাড়গ্রামে চলবে তাপপ্রবাহ। এই সকল অঞ্চলে জাড়ি করা হল সতর্কবার্তা। কলকাতাতেও বাড়বে তাপমাত্রা। আগামীকাল তাপমাত্রা স্বাভাবিক্র থেকে ১ডিগ্রি বেশি থাকবে-জানালো  আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।

তবে স্বস্তি মিলতে পারে ৪৮ ঘন্টা পর। রবিবার ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা জানাল আবহাওয়া দপ্তর। ঐদিন আংশিক মেঘলা আকাশসহ হালকা মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। রাজ্যের উত্তরে জেলাগুলিতে আগামী পাঁচদিন ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা প্রবল। তবে নিস্তার মিলবে না পশ্চিমের। রাজ্যের পশ্চিমের জেলাগুলিতে আগামী পাঁচদিনে তাপমাত্রা আরও বাড়বে। তাপমাত্রার পারদ ৪০ ডিগ্রি ছাড়াবে বলে জানানো হয়েছে আবহাওয়া দপ্তরের পক্ষ থেকে। তবে বিহার ও তার পার্শ্ববর্তী রাজ্যের অঞ্চলগুলিতে আগামী ৮৪ ঘন্টা বইবে লু। 

রবিবারের বিকেলের আগে মিলছে না বৃষ্টির দেখা। বাতাসে আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমাণও থাকবে স্বাভাবিকের থেকে বেশি।