রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সাহিত্যে নোবেল জয়ের পর বাঙালি নাম-পদবী থাকা নোবেলজয়ীর নাম ছিল অমর্ত্য সেন। এরপর সেই তালিকাতে যুক্ত হয়েছেন অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দোপাধ্যায়। অর্থনীতি যে নোবেল জয়ীদের তালিকা রয়েছে তাতে অমর্ত্য সেনের পর আরও এক বাঙালির স্থান হল। অভিজিৎ-এর সঙ্গেই নোবেল পেয়েছেন তাঁর স্ত্রী এস্থের ডাফলো। এছাড়াও অভিজিৎ-এর 'পুওর ইকনমিক্স'- গবেষণায় থাকা আরও এক সহযোদ্ধা পিটার ক্রেমারকেও অর্থনীতিতে নোবেল দেওয়া হয়েছে। বাঙালি সন্তানের নোবেল জয়ের পর স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন ছিল কবে কলকাতায় পা রাখছেন ঘরের ছেলে। অবশেষে মিলল খবর। ২৩ অক্টোবর কলকাতায় পাওয়া যাবে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়-কে। যদিও, দেশে তিনি পা রাখতে চলেছে শুক্রবার রাতের মধ্যেই। 

এখন পর্যন্ত যা খবর তাতে ২২ তারিখ রাতেই কলকাতায় পা রাখবেন অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। এর আগে ১৯ তারিখে দিল্লিতে তাঁর একটি বই-এর প্রকাশ অনুষ্ঠান রয়েছে। এরপর দিন কয়েক দিল্লির বাড়িতে ভাই অনিরুদ্ধ এবং মা নির্মলার সঙ্গে নিখাদ সময় কাটানোর কথা রয়েছে অভিজিৎ-এর। এরপরই সপরিবারে ২২ অক্টোবর রাতেই কলকাতায় পা- রাখবেন তিনি। তবে তাঁর সঙ্গে স্ত্রী এস্থের এই যাত্রায় স্বামীর দেশে আসছেন না। 

২৩ অক্টোবর বুধবার কলকাতার বালিগঞ্জের বাড়িতে কাটানোর কথা অভিজিৎ-এর। শনিবার দিল্লিতে তিনি তাঁর লেখা দ্বিতীয় বই 'গুড ইকোনমিকস ইন হার্ড টাইমস, বেটার অ্যানসারস টু আওয়ার বিগেস্ট প্রবলেমস' প্রকাশিত করবেন। তাঁর বই প্রকাশ করার কথা আগে থেকেই ছিল। এছাড়া সেখানে তাঁর পূর্ব পরিকল্পিত অনুষ্ঠান রয়েছে। তিনি পশ্চিমবঙ্গের লিভার ফাউন্ডেশন দ্বারা পরিচালিত এক অনুষ্ঠানেও তিনি উপস্হিত থাকবেন দিল্লিতে। ইতিমধ্যেই সরকার থেকেও নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদকে সম্বর্ধনা দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। এছাড়া প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফেও তাঁকে সম্বর্ধনা জানানো হবে। এছাড়াও সাউথ পয়েন্ট স্কুলের তরফ থেকেও থাকবে অনুষ্ঠান।  

এই মুর্হুতে অভিজিৎ-এর কলকাতার বাড়ির সদস্যরাও নোবেলজয়ী ঘরের ছেলেকে নিয়ে নানা অনুষ্ঠানের পরিকল্পনাতে মেতেছেন। অভিজিৎ-এর স্ত্রী এস্থের ডাফলো তাঁর দুই ছেলে-মেয়ের সঙ্গে বস্টনে সময় কাটাবেন। অভিজিৎ-এর এক ছেলে এবং এ এক মেয়ে রয়েছে। সাত বছরের মেয়ে নোয়েমি ও পাঁচ বছরের ছেলে মিলান দীপক। ছেলের ঘরে ফেরার খুশিতে ৮৩ বছর বয়সী মা নির্মলা বন্দ্যোপাধ্যায়ও আনন্দে আত্মহারা। নোবেল জয়ের পর থেকেই তাঁর কাছেও এসেছে অসংখ্য ফোন, মেসেজ।