শহর কলকাতার নিউ টাউনে বাসের ধাক্কায় এক মহিলার মৃত্যু হল। কানে মোবাইল নিয়ে কথা বলতে বলতে রাস্তা পার হওয়ার সময় ঘটে এই মর্মান্তিক দূর্ঘটনা৷ আশঙ্কাজনক হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়৷ পুলিশি সূত্রে জানা গিয়েছে বছর পয়ত্রিশের ওই মৃত মহিলার নাম মীনাক্ষী মিশ্র।

আরও পড়ুন, জাঁকিয়ে শীত সপ্তাহের শেষে, কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনা

বুধবার নিউ টাউন বাসস্ট্যান্ডের কাছে দূর্ঘটনা ঘটে৷ একজন মহিলা সিগন্যাল খোলা অবস্থায় রাস্তা পার হচ্ছিলেন৷ অর্থাৎ সেই মুহূর্তে যানবাহন চলাচলের জন্য সিগন্যাল খোলা ছিল৷ স্বাভাবিকভাবেই পথচারীদের রাস্তা পারাপারের সিগন্যাল বন্ধ ছিল৷ সেই সময় তিনি কানে ফোনে কথা বলতে বলতে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। তখন রাস্তায় কর্তব্যরত পুলিশ  এবং পথচারীরা তাঁকে সতর্ক করতে চিৎকার করে ওঠেন৷ কানে ফোন থাকার দরুন তাদের চিৎকার ওই মহিলা শুনতে পাননি৷ যার ফলে ওই মহিলা পথ দূর্ঘটনার শিকার হন৷ আন্দুল স্টেশন থেকে ইকো স্পেস রুটের একটি বেসরকারি বাস ওই মহিলাকে ধাক্কা মারে এবং মীনাক্ষী মিশ্র নামের ওই মহিলা বাসের তলায় পড়ে যান৷ তাঁকে দ্রুত একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন, বাঘরোল হত্যায় হোক ৩ থেকে ৭ বছরের জেল,সওয়াল বন্য়প্রাণী কর্মী হিরক নন্দীর


অপরদিকে স্থানীয়বাসিন্দাদের অভিযোগ, ঘাতক বাসটি অন্য একটি বাসের সঙ্গে রেষারেষি করছিল৷  বাসচালক সতর্ক থাকলে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা এড়ানো যেত৷ এই ঘটনার পরে পুলিশ ওই বেসরকারি রুটের বাস ও চালককে আটক করেছে। পুলিশের সতর্কবার্তা স্বত্বেও সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা আসেনি৷ সরকারের তরফে  বারবার সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ নিয়ে সচেতনতা গড়ে তোলা হয়েছে। তেমনই তার পাশাপাশি গাড়ি চালাতে চালাতে মোবাইলে কথা বলা কিংবা রাস্তা পার হওয়ার সময় ফোনে কথা বলায় রীতিমত নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন। রাস্তা মোড়ে মোড়ে সেজন্য় কম ব্য়ানারও পড়েনি। তবুও এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনার পরে ফের একবার প্রশ্ন তুলে দিল, মানুষ এবিষয়ে আদৌ কতটা সচেতন।