ফের একটি নিম্নচাপ তৈরির সম্ভাবনা হল বঙ্গোপসাগরের উপরে। যার জেরে বৃষ্টির আশা তৈরি হয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। কিন্তু এটা যদি ভাল খবর হলেও তা পুরোপুরি খুশি করতে পারবে না কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বাসিন্দাদের। কারণ, নতুন এই নিম্নচাপের জেরে বৃষ্টি হলেও তা হবে অল্প পরিমাণে। তাতে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির বিপুল ঘাটতি মিটবে না বলেই মত আবহবিদদের। 

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পূর্বাঞ্চলীয় অধিকর্তা সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, উত্তর- পূর্ব বঙ্গোপসাগরের উপরে একটি নিম্নচাপ তৈরি হচ্ছে। যার জেরে আগামী ৪ অগাস্ট থেকে গোটা দক্ষিণবঙ্গেই বৃষ্টি হবে। কিন্তু কোথাওই ভারী বৃষ্টি হবে না। ৪ থেকে ৮ তারিখ পর্যন্ত রোজই বেশ কয়েক পশলা করে হাল্কা বৃষ্টি হবে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। তবে সর্বত্র যে বৃষ্টি হবে, সেরকম সম্ভাবনাও নেই। তবে চারদিনের বৃষ্টিতে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির ঘাটতির পরিমাণ কিছুটা হলেও কমবে। 

সঞ্জীববাবু জানিয়েছেন, এ বছর ১ জুন থেকে এখনও পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির ঘাটতি ৪৮ শতাংশ। উত্তরবঙ্গে অবশ্য তা স্বাভাবিক। যার জেরে সবথেকে বেশি প্রভাব পড়েছে ধান চাষের উপরে। ফলে, চার তারিখ থেকে কী পরিমাণ বৃষ্টি হয় দক্ষিণবঙ্গে, আবহবিদরাও তার দিকে অধীর আগ্রহে তাকিয়ে রয়েছেন। আবহ দফতরের মতে, আট তারিখ পর্যন্ত বৃষ্টির পরে দক্ষিণবঙ্গে এ বছরের বর্ষার গতিপ্রকৃতি অনেকটাই স্পষ্ট হয়ে যাবে। বর্ষার বাকি সময়টুকুর মধ্যে ঘাটতি মিটিয়ে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হয় কি না, তাও বোঝা সম্ভব হবে। 

সঞ্জীববাবু অবশ্য জানিয়েছেন, বর্ষার দ্বিতীয় ভাগে গোটা দেশেই স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে। দক্ষিণবঙ্গেও এই পূর্বাভাস মিলবে কি না, তা জানার জন্য আর কিছুদিন অপেক্ষা করতেই হবে। দক্ষিণবঙ্গে এ বছর বর্ষা প্রবেশ করেছিল প্রায় তেরো দিন দেরিতে। জুনের পরে জুলাইতেও দক্ষিণবঙ্গে সেভাবে বৃষ্টি হয়নি। তাই বর্ষার ঘাটতি প্রায় পঞ্চাশ শতাংশ ছুঁয়েছে।