কলকাতা হাইকোর্ট তাঁর গ্রেফতারির উপরে স্থগিতাদেশ দেয়নি। গ্রেফতারি এড়াতে এবার ফের বারাসতের বিশেষ আদালতের দ্বারস্থ হলেন রাজীব  কুমার। সূত্রের খবর গত শনিবারই বারাসত আদালতে আগাম জামিনের আবেদন করেছেন রাজীব কুমার।  আইনজীবী মারফত সিবিআই-এর হাতে আগাম জামিনের আবেদনের খবরও পৌঁছে দেওয়া হয়েছে বলে খবর। মঙ্গলবার এই মামলার শুনানি হতে পারে। উল্টোদিকে মামলার শুনানিতে সিবিআই-এর তরফেও তাদের আইনজীবী পাল্টা রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করার আবেদন জানাবে। 

সিবিআই মরিয়া হয়ে খুঁজে বেরালেও এখনও খোঁজ নেই এডিজি সিআইডি রাজীব কুমারের। সিবিআই-কে তিনি জানিয়েছেন, আপাতত ছুটিতে রয়েছেন বলে হাজিরা দিতে পারছেন না। যদিও রাজীবের এই যুক্তিকে মানতে নারাজ সিবিআই। ইতিমধ্যেই রাজীবের খোঁজে রাজ্য সরকারকেও চিঠি দিয়েছে তারা।

ধরেই নেওয়া হয়েছিল নতুন করে আইনি পদক্ষেপ করতেই সময় কিনছেন রাজীব। যদিও কলকাতা হাইকোর্ট গ্রেফতারির নির্দেশে স্থগিতাদেশ না দেওয়ার পরেও রাজীব কেন নিম্ন আদালতের দ্বারস্থ হলেন, তা নিয়েও সংশয় রয়েছে আইনজীবী মহলে। যদিও মুল সরকারি কৌশলী শান্তময় বসু জানান এ ধরনের কোনও ঘটনার কথা তাঁর জানা নেই। যদিও তিনি জানান, আইনে বলা আছে হাইকোর্ট  কাউকে গ্রেফতারে স্থগিতাদেশ না দিলে নিম্ন আদালতে তাঁর জামিন হয় না। হাইকোর্টের নির্দেশই বহাল থাকে। তবে মামলার গুরুত্ব বিচার করে অনেক সময়ই নিম্ন আদালতের মতামতকে উচ্চ আদালত খতিয়ে দেখে বলেও জানিয়েছেন সরকারি কৌশলী। সেক্ষেত্রে ব্যতিক্রম কিছু হতে পারে।