সম্প্রতি মুক্তি পেল ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের ছবি  'লাইম এন লাইট'। রেশমি মিত্রের পরিচালিত এই ছবিতে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করেছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। 'লাইম এন লাইট' ছবির গল্প আবর্তিত হয়েছে, একটি নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের জুনিয়র শিল্পী অর্চনাকে ঘিরে।

 'লাইম এন লাইট' ছবিতে জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীময়ী সেনকে, অর্চনা তাঁর জীবনের আইডল হিসাবে মানেন। মজার বিষয় হল, 'লাইম এন লাইট' ছবিতে তাদের দ্বৈত চরিত্রের চেহারাতে কয়েকটি মিল রয়েছে। শ্রীময়ী একদিন দুর্ঘটনার মুখোমুখি হন এবং ডাক্তাররা তাকে জানিয়ে দেন যে সুস্থ হতে কমপক্ষে এক বছর সময় লাগবে। শ্রীময়ী চিকিৎসার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। এদিকে অর্চনা তাঁর জীবনের সঙ্গে সামঞ্জস্য করতে অসুবিধার মুখোমুখি হন। যখন জনপ্রিয় অভিনেতা অয়নজিৎ তার হয়ে পড়ে, অর্চনা নিজেকে শ্রীময়ী হিসাবে ভাবতে শুরু করে এবং তাদের মধ্যে সম্পর্কের বিকাশ ঘটে। আর হঠাৎ একদিন যখন আসল শ্রীময়ী  ফিরলেন, তারপরেই 'লাইমলাইট' এর গল্পে নতুন মোড় আসে । 

 ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত জানালেন, এই ছবি সমাজের থেকেই উঠে এসেছে। যেখানে শ্রীময়ী সেন ও অর্চনার মত দুটো চরিত্রের পারস্পরিক দ্বন্ধ আবার ভালবাসাও আছে। প্রতিভাই যে একজন শিল্পীর আসল পরিচয়, এই ছবি সেই কথা বলবে।  'লাইম এন লাইট' ছবির নায়ক, জিতু কামাল  এখানে অভিনয় করতে পেরে খুবই খুশী। তিনি জানালেন,প্রথম বড় পরীক্ষা দেওয়ার পরে যেমন অনুভূতি হয়, তেমন ভাললাগা তৈরি হয়েছে ছবিতে  ঋতুপর্ণার সঙ্গে স্ক্রীন শেয়ার করতে পেরে। অন্য়ান্য় কমার্শিয়াল ছবির মত ব্য়াকগ্রাউন্ড মিউজিক বা অন্য়কিছু আকাশকুসুম করে  নায়ককে প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা নেই। বরং এই ছবিতে তাঁর অভিনয়টাই প্রধানত শেষ কথা বলবে। দর্শকদের জন্য় ভালবাসা ও শুভেচ্ছা জানালেন, এই ছবির পরিচালক রেশমি মিত্র। 

'লাইম এন লাইট' ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন শ্রীলা মজুমদার, সুমিত্র বন্দ্য়োপাধ্য়ায় এবং অর্জুন চক্রবর্তী। 'লাইমলাইট' ছবির গল্পকার ও পরিচালক রেশমি মিত্র। চিত্রনাট্য এবং সংলাপ লিখেছেন পারমিতা মুন্সী। মিউজিক করেছেন অণ্বেষা দত্ত।