দীর্ঘ টালবাহার পর ফের পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে পাস-ফেল ব্যবস্থা ফিরছে রাজ্যে।  আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকেই পাস-ফেল প্রথার চালু প্রস্তাবে অনুমোদন দিল রাজ্য সরকার।

বাম জমানায় স্কুলছুটের সংখ্যার কমানোর জন্য এ রাজ্যে সমস্ত সরকারি স্কুলের পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে পাস-ফেল প্রথার অবলুপ্তি ঘটানো হয়।  ২০০৯ সালে শিক্ষা অধিকার আইনে এই ব্যবস্থাকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। কিন্তু এই সিদ্ধান্ত বা ব্যবস্থা কী সঠিক? তা  নিয়ে বিতর্ক জারি ছিল।  কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসার পরই নতুন শিক্ষানীতি তৈরির করার সিদ্ধান্ত নেয় মোদি সরকার। আর সেই শিক্ষানীতির মূল লক্ষ্যই ছিল, পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে পাস-ফেল ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনা।  কিন্তু সংবিধানে শিক্ষা বিষয়টিকে কেন্দ্র ও রাজ্যের যৌথ তালিকা রাখা হয়েছে।  চাইলেও কেন্দ্রের একার পক্ষে পাস-ফেল প্রথা ফিরিয়ে আনার সম্ভব ছিল। তার উপর আইন সংশোধন করাও প্রয়োজন। পাস-ফেল ফিরিয়ে আনা নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ-সহ ২৫টি রাজ্যের সরকারের কাছে মতামত জানতে চায় কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রক। পাস-ফেলার ফিরিয়ে আনার পক্ষে মত দেয় পশ্চিমবঙ্গ সরকার। তবে সরকার চাইছিল, পঞ্চম অথবা অষ্টম যেকোনও একটি শ্রেণিতে ফিরিয়ে আনা হোক পাস-ফেল ব্যবস্থা। অনেকেই  আবার চাইছিলেন, স্রেফ পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণি থেকেই নয়, তৃতীয় শ্রেণি থেকেই পাস-ফেল ফেরানো হোক। শেষপর্যন্ত রাজ্যে পাস-ফেল ফেরানো নিয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে শিক্ষা দপ্তর।  কমিটির প্রধান হন রাজ্য বিএড বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সোমা বন্দ্যোপাধ্যায়।
 গত জুলাই মাসে রাজ্য সরকারকে রিপোর্ট দেয় সেই কমিটি।  রিপোর্টে সোমা বন্দ্যোপাধ্যায় কমিটি পাস-ফেল ফেরানোর সুপারিশই করেছে বলে খবর। 

সুত্রের খবর, কেন্দ্রে সুপারিশ মেনে শুধুমাত্র পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতেই পাস-ফেল ফেরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। তবে পরীক্ষা যারা অকৃতকার্য হবে, তাদের একই ক্লাসে আটকে না রেখে ফের একবার সুযোগ দেওয়া হবে।  সেক্ষেত্রে  দু'মাসের স্পেশাল ক্লাসেরও ব্যবস্থা করতে হবে স্কুলগুলিকে। দ্বিতীয়বার পরীক্ষায় পাস করলে নতুন ক্লাসে পড়তে পারবে পড়ুয়ারা।