৩১ জানুয়ারির মধ্যরাত থেকে বন্ধ হচ্ছে টালা ব্রিজ। সেদিন মধ্যরাত থেকেই ব্রিজে বন্ধ হয়ে যাবে সমস্ত যান চলাচল। শুক্রবার মধ্যরাত থেকেই  শুরু হবে ব্রিজটি ভাঙার কাজ। এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলল কেএমডিএ। খুব শীঘ্রই এই বিষয়ে সরকারি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে।

যান চলাচল বন্ধ হওয়ার পরেই শুরু হবে প্রাচীন ব্রিজটি ভাঙার কাজ। এটি ভাঙতে আনুমানিক ৩০ কোটি টাকা খরচ হবে বলে মনে করা হচ্ছে। টানা ব্রিজের দৈর্ঘ্য ৮০০ মিটার।

টালা ব্রিজ বন্ধ হওয়ার পর উত্তরমুখী গাড়ি চলবে কাশীপুর উড়ালপুল দিয়ে। উত্তরমুখী ভারী গাড়ি চলবে লকগেট ব্রিজ দিয়ে। দক্ষিণমুখী গাড়ি চলবে ইন্দ্র বিশ্বাস রোড হয়ে। 

টালা ব্রিজের কারণে ইতিমধ্যে পরিবর্তন করা হয়েছে বাস চলাচলের রুট। ব্রিজ বা ব্রিজ সংলগ্ন রাস্তার ৪২টি বাসরুট নতুন পরিবর্তিত পথে চলছে। টালা ব্রিজের বিকল্প লেভেল ক্রসং নিয়েও কাজ চলছে। পুরনো চিৎপুর ব্রিজের পাশ দিয়ে তৈরি হচ্ছে এই লেভেল ক্রসিং। 

টালায় নতুন ব্রিজ তৈরির প্রক্রিয়াও শুরু করে দিয়েছে সরকার। নতুন ব্রিজ হবে ৪ লেনের। এটি নির্মাণের জন্য রাজ্যের তরফে টেন্ডার ডাকা হয়েছে। ১৮ মাসের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ করার শর্ত দেওয়া হয়েছে দরপত্রে। প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ২৬৮ কোটি টাকা।