অবশেষে কলকাতার মানুষ ভারী বৃষ্টির সাক্ষী থাকছে। শনিবার বিকেল থেকে এমন বৃষ্টি শুরু হয়েছে যার জেরে জলমগ্ন কলকাতার অধিকাংশ এলাকা। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়ে দিয়েছে, এখনই বৃষ্টি থামার কোনও সম্ভাবনা নেই। আজ শনিবার ও কাল রবিবারও চলবে টানা ভারী বৃষ্টি। 

এবছরে প্রথম থেকেই কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির ঘাটতি ছিল। বৃষ্টির ঘাটতির ফলে জলের অপচয় রুখতেও বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছিল। দিনের পর দিন ভয়ানক তাপপ্রবাহ চলার ফলে অবস্থা শোচনীয় হয়েছিল দক্ষিণবঙ্গের মানুষের। 

আলিপুর হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, উচ্চতায় ৮-৯ কিলোমিটার ও প্রস্থে ২৬ থেকে ৩০ কিলোমিটারের মেঘের ফলে শুক্রবার দুপুর ২.৩০ থেকে বিকেল ৫.৩০টায় বৃষ্ট হয় কলকাতায়। দমদমে ৫৬এমএম এবং সল্টলেকের আশপাশে ২৬এমএম বৃষ্টি হয়। মূলত দক্ষিণবঙ্গ ও সংলগ্ন বাংলাদেশের উপরে একটি ঘূর্ণাবর্ত অবস্থান করছিল। যার জন্য শুক্রবার দুপুর থেকেই আকাশ কালো হয়ে আসে। এই একই অবস্থা আগামী  ৪৮ ঘণ্টা বহাল থাকবে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া অফিস। কলকাতার বৃষ্টির ঘাটতি এই বৃষ্টির ফলে ৪৪ শতাংশ কমে যাবে। 

শুক্রবার সকাল থেকে আকাশ তেমন মেঘলা ছিল না। কিন্তু হঠাৎই পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলির উপরে এই ঘূর্ণাবর্তটি তৈরি হয়ে শক্তি সঞ্চার করতে থাকে। তার পরেই বজ্রবিদ্যুৎ সহ ভারী বৃষ্টিপাত শুরু হয়। ককলকাতায় এই বছরে বর্ষার সবচেয়ে শক্তিশালী বৃষ্টিপাত এটাই বলে জানাচ্ছেন আবহাওয়াবিদরা।