শনিবার পশ্চিমবঙ্গ থেকে ধীরে ধীরে শীতের বিদায়ে মনখারাপ রাজ্যবাসীর। অপরদিকে দিল্লি সহ-উত্তর ভারতে ভূমিকম্পে তীব্র আতঙ্ক। শুক্রবার রাত থেকে শনিবার ভোর অবধি মোটেই ভাল যায়নি কারও। তবুও স্বস্তি ছাপ শনিবারের সকালে সূর্যোদয়ে।

 

 


 ভূমিকম্পে আতঙ্ক ছড়াল দিল্লি সহ-উত্তর ভারতে। কয়েক সেকেন্ডের কম্পনে ঘর-বাড়ি ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে আসেন সকলে। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ৬.১। ন্য়াশনাল সেন্টার ফর সিসমোলজি জানিয়েছে, রাত ১০ টা বেজে ৩৪ মিনিটে ভূমিকম্প হয়েছে। কেন্দ্র স্থল পঞ্জাবের অমৃতসর। রিখটার স্কেলে তার মাত্রা ৬.১। মাটি থকেে ১০ কিমি গভীরে সেই উৎসস্থল। এদিকে ভারতের কাছে তাজিকিস্থানেও ৬.৩ মাত্রায় একটি ভূমিকম্প হয়েছে বলে খবর।

 

 

 

 

 

 হাওয়া অফিস জানান দিচ্ছে যে, উত্তরবঙ্গের শীত থাকলেও কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের থেকে শীত আপাতত বিদায় নিতে চলেছে।  আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা সঞ্জীব গঙ্গোপাধ্য়ায় জনিয়েছেন, উত্তরবঙ্গের শীত থাকলেও কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের থেকে শীত আপাতত বিদায় নিতে চলেছে।নতুন করে আর তাপমাত্রা পতন হবে না। ধীরে ধীরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বাড়তে থাকবে। উত্তরবঙ্গের আরও কয়েকদিন ঠান্ডা থাকবে। দক্ষিণবঙ্গের সকালের দিকে হালকা থেকে মাঝারি কুয়াশা থাকবে। বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং ,কালিম্পং, জলপাইগুড়িতে হালকা বৃষ্টি হতে পারে। অপরদিকে, আগামী ৭২ ঘন্টা ঘন কুয়াশার সর্তকতা পাঞ্জাব হরিয়ানা চন্ডিগড় ও দিল্লিতে।  সোমবার ঘন কুয়াশা হবে দক্ষিণবঙ্গ ও উড়িষ্যাতে।

 

 

 

আবহাওয়া দফতররে খবর অনুযায়ী, শনিবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩০.১ডিগ্রি সেলসিয়ার্স। স্বাভাবিকের থেকে ১  ডিগ্রি উপরে ।বাসর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮.১ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স।  স্বাভাবিকের থেকে ১  ডিগ্রি উপরে ।বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ   ৯৯ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৩৫ শতাংশ। শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৯.২ডিগ্রি সেলসিয়ার্স। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮.২ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স।  স্বাভাবিকের থেকে ১  ডিগ্রি উপরে ।বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ   ৯৯ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৩৪ শতাংশ। বৃহস্পতিবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৮.৪ডিগ্রি সেলসিয়ার্স। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫.৫ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স।  স্বাভাবিকের থেকে ২  ডিগ্রি নিচে।বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ   ৯৯ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৩৭ শতাংশ।