রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া ছড়াল ৪০০০-এরও বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৯৩ জন। এই নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৪০০৯! যার মধ্য়ে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্য়ে মৃত্যু হয়েছে পাঁচ জনের। ফলে রাজ্যে এ পর্যন্ত মোট মৃত্যু পৌঁছল ২১১-তে। মঙ্গলবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে এমনটাই জানিয়েছেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়।

সাত দিনেও বিদ্যুৎ নেই এলাকায়, অস্থায়ী সংযোগে এসি-ফ্রিজ চালাতে মানা.

পাশাপাশি স্বরাষ্ট্র সচিব জানান, সরকারি কোয়ারেন্টাইনে এখন আছেন ১৮ হাজার ১৪৬ জন। যদিও কোয়ারেন্টাইন পূর্ণ করে বাড়ি গিয়েছেন ৪ হাজার ২২২ জন। এখনও হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১৩ হাজার ৫৬৪ জন। গত কয়েকদিন ধরেই রাজ্য়ের বেশিরভাগ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন পরিযায়ী শ্রমিকরা। ভিন রাজ্য় থেকে শ্রমিকদের ট্রেন রাজ্য়ে ঢুকতেই জেলায় জেলায় করোনা আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে। 

কথা রাখলেন মোদী, ১০০০ কোটি পাঠানো হল রাজ্য়কে

তবে রাজ্য়ে শ্রমিকদের জন্য় সংক্রমণ বাড়লেও তাদের ফেরানো বন্ধ রাখা হচ্ছে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রসচিব। প্রায় এক সপ্তাহ বন্ধ থাকার পর ভিন রাজ্য থেকে আটকে পড়া শ্রমিকদের নিয়ে শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেন আবার রাজ্যে আসছে। স্বরাষ্ট্র সচিব জানান, বুধবার থেকে এরকম ২০৬ টি ট্রেন রাজ্যে আসবে। 

একদিনে বাংলায় করোনা আক্রান্ত ১৪৯, যার মধ্য়ে ৩৪ জনই মালদহের.

যদিও এ নিয়ে রাজ্য় সরকারকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি বিজেপির রাাজ্য় সভাপতি  দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, আগেই রাজ্য়ে পরিযায়ী শ্রমিকদের ঢোকা বন্ধ করতে চেয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার চাপ দেওয়ায় বাধ্য় হয়ে কিছু ট্রেন চালিয়েছেন। এখন আমফান  আসার ফলে রাজ্য়ের ক্ষতির  অজুহাত দেখিয়ে আবার শ্রমিকদের রাজ্য়ে ফেরাতে চায় না মমতার সরকার।