অন্য়ান্য বিষয়ে ছাড়পত্র পাওয়া গেলেও রাজ্য়ে এখনই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দিচ্ছে না রাজ্য় সরকার। আপাতত গোটা জুন মাস বন্ধ থাকবে রাজ্য়ের সব স্কুল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান । এমনই জানিয়েছেন রাজ্য়ের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। 

শনিবারই আন-লকডাউন প্রক্রিয়ার কেন্দ্রীয় নির্দেশিকায় উল্লেখ ছিল, জুলাই মাসে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে স্কুল কলেজ-সহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। পরবর্তীকালে রাজ্য়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের কী প্রভাব পড়বে তা নিয়ে বিস্তর চিন্তা শুরু হয়। রবিবার জানা যায়, এখনই রাজ্য়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার রাস্তায় হাঁটবে না  রাজ্য় সরকার। পরিবেশ পরিস্থিতি বুঝে এই বিষয়ে ৩০ জুনের শেষে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। 

সম্প্রতি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি না দিলেও রাজ্য়ে ধর্মস্থান খোলার ছাড়পত্র দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এবার থেকে মন্দির, মসজিদ ,গির্জা এমনকী  গুরুদ্বারে যেতে পারবে মানুষ। কিন্তু ধর্মীয় স্থানে ১০ জনের বেশি  ঢোকার অনুমতি দেওয়া যাবে না। মন্দির বা মসজিদ কমিটিগুলি স্বাস্থ্য়বিধি মেনে এই ধর্মীয়স্থানে প্রবেশের ব্যবস্থা করতে পারেন। স্যানিটাইজেশনের বিষয়েও তাদেরই ব্যবস্থা করতে হবে।

পাশাপাশি সরকারি ও বেসরকারি অফিসগুলিতেও কাজের অনুমতি দেন মুখ্যমন্ত্রী। আগে একশো শতাংশ লোক নিয়ে কাজের অনুমতি দিলেও পরে ৭০ শতাংশ লোক নিয়ে কাজ করা যেতে পারে বলে জানান তিনি। এখানেই শেষ নয়, রাজ্য়ে যত সিট তত লোক নিয়ে বাস চালানোর কতা বলেছেন মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। যার জেরে ইতিমধ্য়েই গাদাগাদি করে বাসে যাওয়া শুরু করেছে কলকাতার মানুষ।