বেশ কয়েকদিন ধরেই প্রতিবাদের জেরে বব্যাহত হয়েছিল ট্রেন চলাচল। বাতিল ছিল একাধিক বিমান-ট্রেন। শিলিগুড়ি যাওয়ার পথে কিংবা ফেরার পথে সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়েছিল একাধিক পর্যটকদের। ফলে চিন্তার ভাঁজ পড়ছিল হোটেল-লজ কিংবা গাড়ির মালিকদের। পরিস্থিতি জটিল হয়ে ওঠার ফলে প্রশ্ন জেগেছিল তবে কি এবার শীতে পর্যটকেরা মুখ ফেরাবে উত্তর থেকে!

আরও পড়ুনঃ শীতের ভ্রমণ তালিকায় রাখুন দার্জিলিং, জেনে নিন সেরা দশ কারণ

না, শীতের মরশুমে পাহাড়ে ধরা দিল এক অন্য ছবি। কয়েকদিনের মধ্যেই স্বাভাবিক হল ট্রেন পরিষেবা। পাশাপাশি আগে থেকেই বিমানে টিকিট ছিল কাটা। কেউ আবার বাসেই ভরসা করে বেরিয়ে পড়ল উত্তরের উদ্দেশে। বছর শেষে দার্জিলিং-এর চিত্র গেল বদলে। সেখানেই দেখা গেল পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়। তেমনই পাল্লা দিয়ে বেড়ে গিয়েছে হোটেল-লজ-এর ভাড়া। 

২০১৯ সালের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহতেও ভিড় ছিল দার্জিলিং-এ। সন্ধের সময় ম্যালে থাকা পর্যটকেদের কাছে উপরি পাওনা ছিল বরফ পড়া। সেই মুহুর্তেই আবারও খবরের শিরোনামে চলে এসেছিল দার্জিলিং। দশ বছর পর বরফ দেখেছিল দার্জিলিং। সেই মুহুর্তের আশায় এবারও পর্যটকদের ঢল নামল দার্জিলিং-এ। সোমবার পাওয়া খবর অনুযায়ী দার্জিলিং-এর তাপমাত্রা ও আবহাওয়ার বর্তমান যা অবস্থা, তা যদি আগামী কয়েকদিন থাকে তবে বড়দিনে দেখা মিলতে পারে বরফে। এখন সেই আশায় প্রহর গুণছে পর্যটকেরা।