মাত্র তিন বছর আগের স্মৃতি আবার ফিরে আসছে মোদী সরকারের জমানায়। সালটা ২০১৬। বিমুদ্রাকরণের সময় ১০০০ টাকার নোটকে বাতিল ঘোষণা করে পুরোপুরি বাজার থেকে তুলে নেওয়া হয়েছিল। তার পরিবর্তে আনা হয়েছিল নতুন ২০০০ টাকার নোট। এরপর থেকে কেটে গিয়েছে দীর্ঘ তিন বছর। নতুন করে ১০০০ টাকার নোট বাজারে আনেনি সরকার। সম্প্রতি ২০০০ টাকার নোটও কমে আসছে বাজারে। আরবিআই-এর তরফেও জানা গেছে চলতি বছরে নতুন করে ২০০০ টাকার নোট আর ছাপা হয় নি। আর সেখান থেকে শুরু হয় জল্পনা। তবে কি ২০০০ এর পরিবর্তে ফিরে আসছে ১০০০ টাকার নোট। এই কথাই যেন এখন সকলের মুখে মুখে শোনা যাচ্ছে।

এই জল্পনার মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নয়া ১০০০ টাকার নোট নিয়ে হইচই পড়ে গিয়েছে। ছবির ক্যাপশনও বেশ নজর কেড়েছে আমজনতার। যেখানে লেখা রয়েছে, নতুন ১০০০ টাকার নোট, বাজারে আসতে চলেছে খুব শিগগিরই। অখিল চর্তুবেদি নামক এক ব্যক্তি প্রথম এই টাকার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করে। ছবিটি পোস্ট করা মাত্রই মুহূর্তের মধ্যেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে। ছবিটিতে মহাত্মা গান্ধীর ছবি, রিজার্ভ ব্যাংকের ছাপও রয়েছে। কেউ কেউ আবার টাকার দু'পিঠের ছবিও দিয়েছেন। আর তাতেই শুরু হয়েছে সমস্যা। রিজার্ভ ব্যাংকের বর্তমান গভর্নর শক্তিকান্ত দাসের সইয়ের জায়গায়, নয়া নোটে রয়েছে মহাত্মা গান্ধীর সই।

 নয়া ১০০০ টাকার নোট যো ভুঁয়ো তা নিয়ে আরও সন্দেহ নেই।  রিজার্ভ ব্যাংকের বর্তমান গভর্নর শক্তিকান্ত দাস জানিয়েছেন এই মুহূর্তে ১০০০ টাকার নোট ছাপানোর কোনও পরিকল্পনা নেই সরকারের। বর্তমানে আরবিআই এই নোটও ছাপায় নি বরং এর পরিবর্তে ৫০০ টাকার নোট অনেক বেশি করে ছাপা হচ্ছে। যে এই কাজটি করেছন সে সম্পূর্ণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ১০০০ টাকার নোটটি যে ভুয়ো, আর তা যে আরবিআইয়ের নয়, আর্টিস্ট ইমপ্রেশন তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।