'দারুণ অগ্নিবাণে' এক্কেবারে ওষ্ঠাগত বাঙালির প্রাণ। সূর্যের কটাক্ষে আক্ষরিক অর্থে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে কাজ করতে হয়।  বাতানুকুল ঘর থেকে বেরতেই মনে হয় অগ্নিকুণ্ডে ঝাঁপ দিতে হয়েছে। কিন্তু এসব তো আর অফিস শুনবে না। তাই কাঠফাট রোদ উপেক্ষা করেই বেরোতে হবে বাড়ি থেকে। ছাতা বা সানগ্লাসও এই গরম এড়াতে পারে না। আর তাই গরম থেকে শরীরে বাসা বাঁধে একের পরে এক রোগ। 

গরমে রোদে বেরিয়ে সবচেয়ে বেশি যে রোগের শিকার হতে হয়, তা হল সানস্ট্রোক বা হিটস্ট্রোক। চিকিৎসকরা বলছেন, অনেক সময়ে বোঝা যায় না যে আপনি সানস্ট্রোকের শিকার হচ্ছেন। আর তাতেই আরও বিপত্তি ঘটে। এমনতী মৃত্য়ু পর্যন্ত হতে পারে। তাই সবার আগে জেনে নেওয়া দরকার কোন উপসর্গগুলি বলে দেয়, যে আপনি সানস্ট্রোকের শিকার হচ্ছেন। দেখে নেওয়া যাক চিকিৎসকরা কোন লক্ষণগুলির কথা বলেছেন-  

১) কাঠফাটা রোদে হঠাৎ বেরিয়ে যদি দেখেন মাথা ঘুরছে, তাহলে সাবধান হোন। এটি সানস্ট্রোকের প্রাথমিক ইঙ্গিত দেয়। আর যদি দেখেন  সঙ্গে বমি হচ্ছে, তাহলে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের পরার্মশ নিন।
২) রোদে গরমে চলতে ফিরতে হঠাৎ যদি নিজের শরীর,পেশী, হাত-পা অবশ হয়ে যেতে থাকেন তাহলেও চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে ভুলবেন না। এই উপসর্গও সানস্ট্রোকের ইঙ্গিত দেয়। 
৩)  রোদে বেরিয়ে যদি দেখেন শরীরের তাপমাত্রা হঠাৎ অনেকটা বেড়ে গিয়েছে। গা গরমে পুড়ে যাচ্ছে, সঙ্গে সঙ্গে ছায়ায় যান। রোদ এড়ানোর চেষ্টা করুন। এটাই কিন্তু সানস্ট্রোকের অন্য়তম প্রাথমিক লক্ষণ। 
৪) সানস্ট্রোক হলে অনেক সময়ে ত্বক লাল হয়ে যায় এবং ত্বক জ্বলতে থাকে। যদিও সেটা সাময়িক। অনেকের ক্ষেত্রে যদিও অতিরিক্ত গরম লেগেও অ্য়ালার্জি হয়। তবুও এই লক্ষণ হঠাৎ করে দেখলে সাবধান হোন. সানস্ট্রোকে চামড়ায় টান ধরে। তাই এমন লক্ষণ দেখলেও সাবধান হোন অবশ্য়ই এবং চিকিৎসকের কাছে যান। 
৫) সাধারণত সান-স্ট্রোক হলে প্রচণ্ড পরিমাণে ঘাম হয়।গরমে এমনিতেও ঘাম হয় বলে অনেকেই এই উপসর্গকে গুরুত্ব দেন না। কিন্তু অতিরিক্ত ঘাম হওয়া হিটস্ট্রোকের অন্য়তম লক্ষণ। যদিও অনেক সময় ঘাম নাও হতে পারে। তাই বাকি উপসর্গগুলির দিকে নজর দিন। চিকিৎসককে দেখাতে দেরি করবেন না।
৬) রোদে বেরিয়ে হঠাৎ করে চোখের সামনে সব আবছা দেখতে লাগে বা অন্ধকার য়ে গেলে শীঘ্রই চিকিৎসকের কাছে যান। অনেকে রোদে চোখ ধাঁধিয়ে গিয়েছে ভেবে ভুল করেন। কিন্তু হিটস্ট্রোকে এমন হয়েই থাকে। তাই সতর্ক থাকুন।
৭)  রোদে বেরিয়ে হঠাৎ করে যদি দেখেন খুব দ্রুত হৃদস্পন্দন চলছে, তাহলে সতর্ক হোন। সানস্ট্রোকের শিকার হলে এটা হয়ে থাকে।
 
এবার জেনে নিন কী করবেন হিটস্ট্রোক থেকে বাঁচতে-

১) উচ্চ রক্তচাপ যাঁদের, তাঁদের বিশেষে করে রোদ এড়িয়ে চলা উচিত। খুব প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে রোদে বেরোবেন না।
২) জলের বোতল, ছাতা ও রোদচশমা সঙ্গে অবশ্যই রাখুন। এতে কিছুটা হলেও  রোদ এড়াতে পারবেন।
৩)যত পারুন হালকা তেল ছাড়া খাবার খান। এমন খাবার খান যাতে হাইড্রেটেড থাকেন।
৪) রোদ থেকে বাঁচতে অবশ্য়ই সানস্ক্রিন ব্য়বহার করুন। 
৫) নিজের প্রয়োজনীয় ওষুধ সঙ্গে নিয়ে বেরোন। অবশ্য়ই ব্য়াগে ওয়েট ওয়াইপ রাখুন। খুব গরম লাগলে তা দিয়ে মুখ, ঘাড় ও কানের পিছন মুছে নিন। 
৬) রোজদের মধ্য়ে পার্ক করা গাড়িতে বসে থাকবেন না। 
৭) কাঁচা পেঁয়াজ সঙ্গে রাখুন। অতিরিক্ত লু লাগলে কাঁচা পেঁয়াজ চিবিয়ে খান।