চুল তার কবেকার অন্ধকার বিদিশার নেশা- এই লাইনটি যতবারই আমরা পড়ি চোখের সামনে একঢাল কালো চুলের রমণীর চিত্র ভেসে ওঠে। লম্বা চুলের মাহাত্ম যে কোনও দিনই কমবে না, তা তাই বলাই যায়। কিন্তু লম্বা চুল পেতে গেলে একটু যত্মও করতে হয়। যতই ফ্যাশনে ছোট চুল থাকুক, লম্বা চুলের প্রেম আজীবনের। তাই চট করে কাঁচি চালাতেও ভয় পায় অনেকে।  কিন্তু চুল সঠিক সময়ে না কাটলে তা দেখতে মোটেও ভালো লাগবে না। চুলও উঠতে থাকবে। 

অনেকে বলেন তিন মাস  তিন মাস অন্তর চুল কাটা দরকার। কিন্তু প্রত্যেকের চুলের ধরনে পার্থক্য থাকে। তবে কয়েকটি বিশেষ লক্ষণ দেখলেই বোঝা যায়, এবার চুল ছাঁটার সময় এসেছে।

কী ভাবে বুঝবেন আপনার চুল কাটার সময় এসেছে, জেনে নিন- 

১) চুলের ডগা পাতলা হয়ে যায় অনেক দিন চুল না কাটলে। ধরুন আপনি পনিটেল বা বিনুনি করলেন। চুলের ডগা পাতলা হয়ে গেলে দেখতে মোটেই ভাল লাগবে না। এক্ষেত্রে চুল ছেঁটে ফেলাই সমাধান। 

২) চুলের স্বাস্থ্য খারাপ হলে গোছা গোছা চুলও উঠবে। শ্য়াম্পু করার সময়ে হোক বা চুলের ক্লিপ খুলতেই উঠে আসছে চুল। এই  প্রবণতা কিন্তু চুলের পক্ষে খুবই অস্বাস্থ্যকর। এর থেকে বাঁচতে অবশ্যই চুল কাটা প্রয়োজন। 

৩) চুল বহুদিন ধরে না ছাঁটলে যে সমস্যা হয় সেটি হল চুলে জট পড়ে যায়। যতই চুল আঁচড়ে পরিপাটী রাকার চেষ্টা করুন, চুল ঘেঁটে এক সা।  এক্ষেত্রে অবশ্যই চুল ছাঁটা উচিত। 

৪) সবচেয়ে বড় লক্ষণ হল চুলের ডগা ফাটা। চুলের ডগা ফাটলে বা গিঁট পড়ে গেলে বুঝবেন চুলের স্বাস্থ্য় মোটেই ভাল নেই। এছাড়া দুমুখো চুল দেখলেও বুঝবেন চুলে এবার কাঁচি চালানো দরকার। 

৫) সবারই চুলে কোনও  নির্দিষ্ট ছাঁট থাকে। কিন্তু এই চুলের ছাঁট সব সময়ে এক থাকে না। যত দিন যায় হেয়ারকাটের শেপ নষ্ট হতে থাকে। ফলে দেখতে ভাল লাগে না। এই লক্ষণ ইঙ্গিত দেয় যে এবার চুল কাটতে হবে।