মেদ কমানোর কথা মাথায় আসলেই ডায়েট এবং শরীর চর্চার প্রসঙ্গ উঠে আসে। কত কাঠখড়ই না পোড়াতে হয় ওজন কমাতে হয়। কখনও জিমে গিয়ে, কখনও ডায়েটে রাশ টেনে,, মাথার ঘাম পায়ে ফেলে ওজন কমাতে হয়। কিন্তু জানেন কি বিট খেলেও ওজন কমানো যায়। 

এক হেলথ ওয়েবসাইটের প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে এমনই। বিট এমন একটা খাবার যা সহজে কেউ পছন্দ করে না। আর ওজন কমানোর বিষয়ে যে এভাবে বিট কাজে আসতে পারে, তা অনেকেরই অজানা। 

তবে শুধু ওজন কমানোই নয়। নিয়মিত বিট খেলে আরও উপকার পেতে পারেন। বিট খেলে বেশিদিন সুস্থ ভাবে বেঁচে থাকার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। তাই রোজ  গরম গরম এক বাটি বিটের স্যুপ খেলেই সুস্থ থাকতে পারবেন।  এছাড়াও বেশ কিছু রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে এই সবজি। 

লাল রংয়ের এই সবজিতে থাকে ভিটামিন সি,  ফোলেট, ফাইবার। শারীরিক ভাবে সুস্থ রাখার পাশাপাশি তাই বিট মানসিক ভাবেও সুস্থ রাখতে পারে।

জেনে নেওয়া যাক নিয়মিত ডায়েটে বিট রাখলে আর কী কী উপকার পাবেন- 

১) শরীরকে তরতাজা ও শক্তিশালী রাখতে এই খাবারের জুড়ি মেলা ভার। 

২) হজমে সাহায্য করতেও সক্ষম বিট।

৩) যৌনতায় সমস্যা হলেও নিয়মিত বিট খেতে পারেন। এতে সুস্থ থাকবেন। 

৪) যাঁরা উচ্চ রক্তচাপে ভোগেন তাঁরা বিটের স্যুপ বানিয়ে খেতে পারেন। 

৫) এতে ফাইবার থাকায় অল্প খেলেই বেশিক্ষণ পেট ভরা থাকে। ফলে বেশি খিদে পায় না। এবং খাওয়া দাওয়া সীমিত থাকে। 

৬) হজম শক্তি খারাপ হলে ওজনও সহজেই বেড়ে যায়। বিট খেলে শরীরের নার্ভগুলি সক্রিয়ে হয়ে যায়। ফলে খাবার হজমও হয় সহজে। 

৭) শরীর থেকে অতিরিক্ত টক্সিন বের করে দেয় বিট। ফলে সহজেই ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। আর ক্যালরি কম থাকায় পেট ভরানোর জন্য খেতেই পারেন বিটের তরকারি।