করোনা ভাইরাস আতঙ্কের জেরে ২১ দিনের জন্য লকডাউন। স্তব্ধ গোটা দেশ। এমন অবস্থায় ঘরের বাইরে যাওয়া একেবারেই নিষেধ। করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য এই হোম কোয়ারেন্টাইন একমাত্র দাওয়াই। পাশাপাশি সঠিকভাবে হাইজিন মেইনটেন করা আছেই। এমন অবস্থায় যখন অফিসের কাজ বাড়ি থেকে করতে হচ্ছে তার পাশাপাশি রয়েছে বাড়ির কাজ করার বিষয়ও। তাই এমন অবস্থায় নিজের যত্ন নিতে যে পার্লারে যাবেন তার উপায়ও নেই। তবে এর জন্য নো চিন্তা হোম কোয়ারেন্টাইনেও যত্ন নিন ত্বকের আর পান কোমল ও দিপ্তীময় ত্বক।

এখন যেহেতু ঘরের বাইরে যেতে হচ্ছে না তাই মেক-আপ-এর সরঞ্জামগুলিকেও ত্বকের সুস্থতার জন্য কয়েকদিনের জন্য রাখুন দূরে। সারাদিন কাজের ব্যস্ততা আর খাওয়া-দাওয়ার অনিয়মের ফলে এখনই যদি ত্বকের যত্ন নেওয়া শুরু না করেন, তবে পড়তে হতে পারে জটিল সমস্যায়। তাই বজায় রাখুন রোজকার নিয়মে ত্বকের যত্ন।  কিন্তু এই সময়ে বিশেষ কিছু বিষয়ে খেয়াল রাখলে আপনার ত্বককে অতিরিক্ত এই শুষ্কতা ও আর্দ্রতা থেকে রক্ষা করতে পারবেন। তবে একনজর জেনে নেওয়া যাক নিয়মগুলি।

আরও পড়ুন- লকডাউনে চার দেওয়ালের মধ্যে কীভাবে সামলাবেন বাচ্চাদের, রইল টিপস

এই সময়ে আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে ও গরম ও ঠান্ডা বাতাস আপানর ত্বকের প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা কেড়ে নিতে পারে। তাই নিয়মিত লোশন বা ভালো ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করুন। তবে অতিরিক্ত ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহারের ফলে ত্বক অয়েলি হয়ে কালচে দেখাতে পারে। তাই যে কোনও ধরণের ত্বকের জন্য জেল বা ক্রিম জাতীয় ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিৎ। প্রাকৃতিক তেল ত্বকে বয়সের ছাপ দূর করার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পুষ্টি জোগান দেয়। তাই ত্বকের স্তরকে রক্ষা করতে এবং উজ্জ্বলতা বজায় রাখতে স্নানের আগে এই তেল ব্যবহার করুন।

আরও পড়ুন- ওয়ার্ক ফ্রম হোমে ইন্টারনেটের স্পিড ভোগাচ্ছে, রইল সহজ সমাধান

 সব সময়ই পাতে রাখুন পুষ্টিকর খাবার। বিশেষ করে যে সব খাবার ওমেগা ৩ সমৃদ্ধ সেই সব খাবার শীতে ত্বকের উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। যেমন বাদাম ও সবজি এই সময় ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। পাশাপাশই মিষ্টি জাতীয় এবং ফ্যাট জাতীয় খাবার কম খাবেন কারণ এতে ত্বকে ব্রণের সমস্যা দেখা দিতে পারে। এর পাশাপাশি অবশ্যই মনে রাখতে হবে, গরম লাগছে বলে খুব ঠান্ডা জল আপনার ত্বকের ক্ষতি করতে পারে। তাই এই মরশুমে স্নানের জন্য হালকা গরম জল ব্যবহার করুন,যা আপনার ত্বকের সঙ্গে সহজেই খাপ খাবে।