বর্তমানে বেশিরভাগ রান্নাঘরেই বঁটির বদলে জায়গা দখল করে নিয়েছে ছুঁরি। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় বঁটির বদলে ছুঁরি দিয়ে শাক-সবজি, তরকারি কাটতে সাচ্ছন্দ বোধ করেন অনেকে। তাই এখন বেশির ভাগ রান্নাঘরেই বঁটির বদলে ব্যবহার করা হয় ছুঁরি এবং কাটার সুবিধার জন্য থাকে চপিং বোর্ড। প্লাস্টিক এবং কাঠ, বাজারে এই দুই ধরনের চপিং বোর্ড পাওয়া যায়। আপাতদৃষ্টিতে এই দুই ধরনের চপিং বোর্ড ব্যবহার যোগ্য মনে করা হলেও বাস্তবে কিন্তু মোটেও তা নয়। কোন ধরনের চপিং বোর্ড স্বাস্থ্যের পক্ষে নিরাপদ আর কোনটি ক্ষতিকর তা জেনে নেওয়াটা খুবই জরুরী।

স্বাস্থ্যের পক্ষে নিরাপদ কোন চপিংবোর্ড, ঠিক এই বিষয়ে জানার জন্য সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার অধ্যাপক ডিন ও ক্লিভার একটি গবেষণা করেন। এই গবেষণা থেকেই জানা গিয়েছে এই বিষয়ের তথ্য। গবেষণা থেকে জানা গিয়েছে, প্লাস্টিকের চপিং বোর্ডে ব্যবহারের জন্য খুবই উপযোগী। ব্যবহারের পর সহজেই ধুয়ে রাখা যায়, সজবি কাটার দাগও সহজেই উঠে যায়, আর একইসঙ্গে চলেও অনেকদিন। তবে, এই প্লাস্টিকের চপিং বোর্ডে স্যালমোনেলার নামক এক ধরনের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার জন্মায়। এই ব্যকটেরিয়ার প্রভাবে হতে পারে আন্ত্রিক সহ আরও নানান পেটের সমস্যা।

আরও পড়ুন- একঘেয়ে চিকেনের স্বাদ বদলাতে বানিয়ে নিন মরোক্কান রোস্টেড চিকেন

 

কাঠের চপিং বোর্ডে এই ধরণের ব্যাকটেরিয়া বাসা বাধতে পারেন না ফলে বংশবিস্তারও করতে পারেনা।  এই ব্যকটেরিয়াগুলি কাঠের বোর্ডের উপর থেকে নীচের স্তরে চলে যায়। প্লাস্টিকের বোর্ডে যেহেতু কাঠের বোর্ডের তুলনায় অতিরিক্ত দাগ পড়ে, সেগুলির মধ্যে সহজেই স্যালমোনেলার বংশবৃদ্ধি করত সক্ষম হয়। এমনকী স্যালমোনেলার ছাড়াও আরও বহু ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া বাসা বাধে প্লাস্টিকের চপিং বোর্ডে। সাবান দিয়ে ধোয়ার পরেও সেগুলি বোর্ডের খাঁজের মধ্যে আটকে থাকে। তাই খালি চোখে প্লাস্টিকের চপিং বোর্ড দেখতে পরিস্কার লাগলেও তা স্বাস্থ্যের জন্য মোটেও নিরাাপদ নয়।

রান্নাঘরে সবসময় তাই শক্ত কাঠের চপিং বোর্ড ব্যবহার করা দরকার। যাতে সবজি কাটলেও সহজে তাতে দাগ পড়বে না। একইভাবে রান্নাঘরে সবজি কাটার ছুঁড়ি হতে হবে ধাঁরালো, যাতে সবজি কাটার সময় অতিরিক্ত চাপ দিতে না হয়। কাঠের চপিং বোর্ড যত শক্ত হবে ছুঁড়ির ধারও তাতে ভালো থাকে সহজে ভোঁতা হয়ে যায় না।