সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর:  বিক্ষোভ নয়, দলের কর্মসূচিতে যোগ দিতে যাওয়ার পথে ফের পুলিশি বাধার মুখ পড়লেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। ঘটনার প্রতিবাদে কোলাঘাটে প্রায় ঘণ্টা দুয়েক ধরে অবস্থান বিক্ষোভও করলেন গেরুয়াশিবিরের নেতারা। কিন্তু তাতেও অবশ্য কোনও লাভ হয়নি। শেষপর্যন্ত নিরুপায় হয়ে কলকাতায় ফিরে যেতে হয় সায়ন্তনকে।

আরও পড়ুন: ৩০টি বসন্ত পরে মহিলা জানতে পারলেন তিনি 'পুরুষ', লহমায় বদলে গেল ক্যান্সার আক্রান্তের জীবন

করোনা আতঙ্কের মাঝে চড়ছে রাজনীতির পারদ। দলের কর্মীদের হেনস্থা, আমফান ত্রাণে দুর্নীতি-সহ একগুচ্ছ অভিযোগে পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিতে পুলিশের কাছে স্মারকলিপি দেওয়ার কর্মসূচি ছিল বিজেপি। সেই কর্মসূচিতে যোগ দিতেই শুক্রবার কলকাতা থেকে সড়ক পথে কাঁথি যাচ্ছিলেন দলের নেতা সায়ন্তন বসু। যখন কোলাঘাটের কেটিপিপি রোডে পৌঁছান তিনি, তখন পুলিশ গাড়ি আটকে দেয় বলে অভিযোগ। কেন? জানানো হয়, করোনার সংক্রমণের কারণে এখন কোনওরকম জমায়েত করা যাবে না। এরপর পুলিশের সঙ্গে রীতিমতো বচসা জড়িয়ে পড়েন বিজেপি নেতারা। শুধু তাই নয়, সেখানে ঘণ্টা দুয়েক ধরে অবস্থান বিক্ষোভও চলে।

আরও পড়ুন: পুরসভায় নিয়োগে 'স্বজনপোষণ', বিস্ফোরক অভিযোগ তুললেন খোদ বিদায়ী ভাইস চেয়ারম্যান

বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু বলেন, 'আমরা মাত্র ৪ জন ছিলাম। পুলিশ ছিলেন অনেক বেশি। তাঁরা করোনা ছড়াবেন না। করোনা কী শুধু আমরা ছড়াচ্ছি। কেন পূর্ব মেদিনীপুরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না আমাদের? এখানে ঢোকার জন্য কী ভিসা লাগবে নাকি পাসপোর্ট?' কিন্তু ঘটনা হল, পুলিশের সঙ্গে বচসা, অবস্থান বিক্ষোভের পরেও কাঁথিতে দলের কর্মসূচিতে যোগ দিতে যেতে পারেননি সায়ন্তন।  কলকাতায় ফিরে যান তিনি।