সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর: সচেতনতার অভাবেই কি ঘটল বিপত্তি? করোনা আতঙ্কে পাঁচদিন বন্ধ থাকবে পুরসভা। দুর্ভোগ বাড়ল সাধারণ মানুষের। আতঙ্কের পারদ চড়ল পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকে।

আরও পড়ুন: করোনা সংক্রমণে মৃত্যু, প্রাণ হারালেন সবং থানার সেকেন্ড অফিসার

আগের থেকে সুস্থতার হার বেড়েছে অনেকটাই। সকলকে যে হাসপাতালে ভর্তি হতে হচ্ছে, এমনটাও নয়। বাড়ি থেকে চিকিৎসার করিয়ে সেরে উঠছেন অনেকে। কিন্তু ঘটনা হল, করোনার প্রকোপ যে কমছে না! যতদিন দিন যাচ্ছে, আক্রান্তের সংখ্যা যেন ততই বাড়ছে। সেই তালিকায় এবার নাম উঠল পূর্ব মেদিনীপুর তমলুক পুরসভার এক কর্মীরা।

জানা গিয়েছে, যিনি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, তিনি চাকরি করেন পুরসভার জলবিভাগে। জ্বরে ভুগছিলেন বেশ কয়েকদিন। করোনা নয় তো? নিয়মাফিক লালারস সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয় কলকাতার আরজির মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। রিপোর্ট পজিটিভ এসে। ব্যস যায় কোথায়! ঘটনাটি জানাজানি হতেই আতঙ্ক ছড়িয়েছে তমলুক পুরসভায়। কারণ, করোনা আক্রান্ত ওই কর্মী জ্বর নিয়েও অফিস করেছেন। সহকর্মীদের অনেকেই তাঁর সংস্পর্শেও এসেছেন। সংক্রমণ রুখতে পাঁচদিন পুরসভা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: বন্ধুকে টাকা ধার দেওয়ার 'মাশুল', ধারালো অস্ত্রের আঘাতে রক্তাক্ত হলেন যুবক

তমলুক পুরসভার বিদায়ী চেয়ারম্যান তথা প্রশাসক রবীন্দ্রনাথ সেন বলেন, এলাকার বেশিরভাগ মানুষই সচেতন নন। তাই দিনে দিনে তমলুকে করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে। প্রশাসন সূত্রে খবর, পূ্র্ব মেদিনীপুর জেলায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছে ১৩৮ জন। এখনও পর্যন্ত জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭২৬৭।