ভারতে সিএএ বিল নিয়ে দেশজোডড়া বিতর্কের মধ্যেই ফের পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে এক হিন্দু মহিলাকে বিয়ের আসর থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে জোর করে ধর্মান্তরকরণ এবং অন্য মুসলিম পুরুষের সঙ্গে বিবাহ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার (২৮ জানুয়ারি) এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসে।

জানা গিয়েছে, বছর ২৪-এর ওই হিন্দু মহিলার নাম ভারতী বাই। করাচি থেকে প্রায় ২১৫ কিলোমিটার দূরে সিন্ধ প্রদেশের মাটিয়ারি জেলার হালা নামে এক শহরে এক হিন্দু পুরুষের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিয়ের আসরেই অজ্ঞাত পরিচয় কিছু লোক হামলা চালায়। তারা ভারতী-কে সেখান থেকে অপহরণ করে। তারপর তাকে জোর করে ইসলাম-এ ধর্মান্তরিত করা হয় এবং অপহরণকারীদের মাথা, মুসলিম পুরুষটির সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হয়। সবচেয়ে বড় কথা স্থানীয় পুলিশও অপহরণকারীদের সহায়তা করে বলে অভিযোগ।

ভারতী বাই-এর বাবা কিশোর দাস জানিয়েছেন, অপহরণকারী তাঁদের পরিচিত। তাঁর নাম শাহরুখ গুল। তিনি স্থানীয় থানার বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য ও আরও বেশ কয়েকজন লোক নিয়ে এসে বিয়ের অনুষ্ঠান থেকেই তাঁর মেয়েকে প্রকাশ্য দিবালোকে তুলে নিয়ে যায়।

ভারতী-র ইসলাম গ্রহণ এবং শাহরুখ গুল-এর সঙ্গে বিবাহের দলিল-সহ তাঁর একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ধর্মান্তরের নথি অনুসারে, ভারতী ২০১৯ সালের ১ ডিসেম্বর ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। ওইদিনই তাঁকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। ইসলাম গ্রহণের পর ভারতীর নতুন নাম হয়েছে 'বুশরা'। তাঁর ভারতীর ধর্মান্তরের শংসাপত্র দিয়েছে, করাচির আল্লামা মহম্মদ ইউসুফ বানুড়ি শহরে অবস্থিত জমিয়ত-উল-উলুম ইসলামিয়া। ধর্মান্তরের ঘটনার সাক্ষী তথা শংসাপত্রদাতা হলেন মুফতি আবুবকর সইদ উর রহমান।