আলাদা করে বলার কিছু নেই, সবটাই দিনের আলোর মতো পরিষ্কার - আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতে কুলভূষণ মামলার রায় গিয়েছে ভারতের পক্ষেই। তবু জানিয়ে রাখা ভাল, আন্তর্জাতিক মহলও ভারতেরই জয় দেখেছে বুধবারের রায়ে। আন্তর্জাতিক আদালতের দক্ষিণ এশিয় আইনি পরামর্শদাতা রীমা ওমরও টুইট করে তাইই জানিয়েছেন। এরপরেও পাক সরকার দাবি করল আদালতের রায়ে জয় নাকি তাদেরই হয়েছে।

কেন এই দাবি করছে তারা? কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ড স্থগিত করা হলেও তাঁকে পুরোপুরি মুক্ত করতে বলেনি আদালত। বলা হয়েছে গোটা মামলাই পর্যালোচনার জন্য। অপরাধ ও রায় পুনর্বিবেচনার জন্য়। আর তাতেই পাকিস্তান মনে করছে তাদের জয় হয়েছে। অন্তত প্রকাশ্যে সেইরকমই দাবি করছে।

এদিন রায় বের হওয়ার পর পাক সরকারের সরকারি টুইটার হ্যান্ডেলে বলা হয়েছে এই রায় পাকিস্তানের জন্য বড় জয়। কারণ ভারতের আবেদন ছিল কুলভূষণ-কে মুক্তি দেওয়ার। আদালত তাতে সম্মত হয়নি। অথচ এই একটি বিষয় বাদ দিলে প্রায় অধিকাংশ পাক যুক্তিই ১৫-১ ভোটে খারিজ হয়ে গিয়েছে আদালতে।

পাকিস্তানের পরবর্তি পদক্ষেপ কি হবে? পাক বিদেশ দফতর থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পাকিস্তান আন্তর্জাতিক মহলের এক দায়িত্ববান সদস্য। তাই তারা আইন অনুযায়ীই পরবর্তি পদক্ষেপ নেবে চলবে। বিদেশ দফতরেও দাবি কুলভূষণকে মুক্ত করেনি আদালত, তাই তারাই জিতেছে। আদালতের পক্ষে-বিপক্ষের রায় গণনা তো তা বলছে না, তবে কীভাবে জিতল পাকিস্তান, বাউন্ডারি গণনায়?