সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলের শিকার হলেন ইমরান খান। গত সপ্তাহের শেষ কয়েকদিন ধরে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বাড়িতে বসেছে বিয়ের আসর। প্রসঙ্গত, গত বছরে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান প্রস্তাব দিয়েছিলেন, তাঁর বাড়িটি একটি শিক্ষামুলক প্রতিষ্ঠানে তৈরি করা যেতে পারে। কিন্তু গত সপ্তাহের শেষের দিকে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে চলা বিয়ের অনুষ্ঠানকে ঘিরে কার্যত অসস্তুষ্ট হয়ে পড়েন নেটিজেনরা। কারণ তাঁদের একাংশের দাবি, প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন কি তবে  এবার বিয়ে বাড়ির জন্য ভাড়া দেওয়া হচ্ছে।

 

চলতি মাসের তিন তারিখে ব্রিগেডিয়ার ওয়াসিম ইফতিখার চীমা'র মেয়ে আনম ওয়াসিম- র গ্র্যান্ড বিয়ের পার্টি অনুষ্ঠিত হয়েছিল প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বাসভবনে। কিছু নিকট আত্মীয় এবং বিশেষ কিছু অতিথির আগমনে মহা আড়ম্বরের সঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়েছিল সেই বিয়ের অনুষ্ঠান। প্রসঙ্গত ব্রিগেডিয়ার চীমা প্রধানমন্ত্রীর সেনা সচিব। 

 

সম্প্রতি সেই বিয়ের আমন্ত্রণ পত্র-সহ বিয়ের একাধিক ছবি ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিও দেখা গিয়েছে। ভাইরাল হওয়া বিয়ের আমন্ত্রণ পত্রেও প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের ঠিকালা উল্লেখ করা হয়েছে। প্রসঙ্গত সাধারণ নির্বাচনে জিতে ২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে ইসলামাবাদ ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি স্থাপন করা হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বানানোর জন্য সেখানে তিনি আর থাকবেন না বলেও জানিয়েছিলেন তিনি। তারপর এই ধরণের ছবি প্রকাশ্যে আসার ফলেই কার্যত ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা।