পাকিস্তানে করোনাভাইরাস মহামারির দাপট যত বাড়ছে, ততই রাজনৈতিক ও ধর্মীয় নেতাদের জনগণের মধ্যে আজব করোনারোধী তত্ত্ব দেওয়ার প্রবণতা বাড়ছে। সম্প্রতি এক ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গেল একজন পাকিস্তানি মৌলানা করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে লোকজনদের যত বেশি সম্ভব ঘুমানোর পরামর্শ দিচ্ছেন। কিন্তু, কেন? ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে কীভাবে করোনা রোধ করা যাবে? তার বৈজ্ঞানিক তত্ত্বও দিয়েছেন তিনি।

মৌলানার বৈজ্ঢানিক ব্যাখ্যাটি খুব সহজ। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে তিনি বলছেন, ঘুমিয়ে থাকলে ভাইরাসটি মানবদেহের কোনও ক্ষতি করতে পারে না। কারণ, মানুষ যখন ঘুমায় ভাইরাসটিও তখন ঘুমিয়ে পড়ে। মানুষ যত বেশি ঘুমায়, ভাইরাস-ও তত বেশি করে ঘুমায়। আর আমরা মরে গেলে এটিও মারা যায়। তাই ভাইরাস আক্রান্ত হলে বেশি করে ঘুমানো উচিত। তাহলে ভাইরাসে দেহের ক্ষতিও হবে না। আর ছড়িয়েও পড়বে না অন্য দেহে। চিকিৎসকরাই করোনা রোধে বেশি করে ঘুমানোর পরামর্শ দেন বলেও দাবি করেন ওই মৌলানা।  

বস্তুত তিনি কিছুটা অংশ ঠিকই বলেছেন। মানুষ মারা গেলে, কয়েক ঘন্টা পর শরীরে থাকা ভাইরাসও মারা যায়। কিন্তু, মানুষ ঘুমালো ভাইরাসও ঘুমিয়ে পড়ে এই তত্ত্ব কোথা থেকে পেলেন কে জানে! অনেকে বলছেন, ভাগ্গিস তিনি করোনা রোধে সবাইকে মৃত্যুববরণ করতে বলেননি।

পাকিস্তানে অবশ্য এই রকম ভুল তথ্যের প্রচার এই নতুন নয়। দিন কয়েক আগে যেমন এক সরকারি ঘোষণা থেকে রটে গিয়েছিল পাকিস্তানে করোনা হানা দেয় বিকাল পাঁচটার পর। সরকারের তরফ থেকে বিকাল পাঁচটার পর চলাচল ও কর্মকাণ্ডে বিধিনিষেধের কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। সেই সংবাদ পরিবেশন করতে গিয়েই স্থানীয় এক সংবাদমাধ্যম বলে, পাক সরকার জানিয়েছে করোনা পাকিস্তানে বিকাল ৫টার পর হানা দেয়।