কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা ও ৩৫এ ধারা রদ করে দিয়ে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ-কে দুটি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করার যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তাতে মোদী সরকারের সিদ্ধান্তকে 'বেআইনি' বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। আর এরপরই একে একে ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার পথে এগিয়েছে পাকিস্তান। 

আর এইভাবেই বৃহস্পতিবার দিন বাতিল করে দেওয়া হয় ভারত পাকিস্তানের মধ্যে রেলসংযোগ রক্ষাকারী সমঝোতা এক্সপ্রেসের পরিষেবাও। তবে দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে শুক্রবার ভোর রাতে দিল্লি থেকে পাকিস্তানের উদ্দেশ্যে রওনা দেয় সমঝোতা এক্সপ্রেস। এদিন সমঝোতা এক্সপ্রেসে সওয়ার হয়েছিলেন প্রায় ৭৬ জন ভারতীয় এবং ৪১ জন পাকিস্তানি। 

 

জানা গিয়েছে, বৃস্পতিবার রাত ৮টা নাগাদ আট্টারি রেলওয়া স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করার কথা ছিল সমঝোতা এক্সপ্রেস-এর। টানা পাঁচ ঘন্টার দেরির পর শুক্রবার রাত দেড়টা নাগাদ যাত্রা শুরু করে বলে সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর। 

জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করে দেওয়ার পর ভারত পাক সম্পর্কের টানাপোড়েন প্রকাশ্যে চলে এসেছিল। তবে ভারতীয় রেল-এর তরফে জানানো হয় যে, রেল পরিষেবা ভারতের তরফে স্থগিত রাখা হয়নি, তবে সাম্প্রতিক পরিস্থিতির নিরিখে পাক কর্তৃপক্ষ তাদের ক্রুদের ভারতে পাঠাতে অস্বীকার করেছেন। তবে অবশেষে সমস্ত জল্পনা কাটিয়ে পাকিস্তানের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে দিল সমঝোতা এক্সপ্রেস।