১৯৪৭ সালে স্বাধীনতা পাওয়ার পর থেকে আজ অবধি পাকিস্তান কখনই জম্মু ও কাশ্মীরকে ভারতের রাজ্য হিসেবে মেনে নেয়নি পাকিস্তান। এইবার, ভারত সকারের জম্মু-কাশ্মীর বিশেষ মর্যাদা বাতিল করা নিয়ে রাষ্ট্রসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে সুর চড়াতে গিয়েই গন্ডোগোল করে ফেললেন পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি।  ৪২তম সম্মেলনের পাশাপাশি সাংবাদিকদের সাক্ষাতকার দিতে গিয়ে তিনি বলে বসলেন 'ভারতের রাজ্য জম্মু ও কাশ্মীর'। ফলে পাক বিদেশমন্ত্রী মেনেই নিলেন জম্মু ও কাশ্মীর ভারতের রাজ্য।

তার আগে অবশ্য মূল সম্মেলনে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করা নিয়ে ভারতকে আক্রমণ করেন তিনি। উপত্যকার বর্তমান পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার জন্য রাষ্ট্রসংঘের সমর্থনে একটি কমিটি গঠনের দাবি জানান তিনি।

সম্মেলনে ভারত দাবি করেছে ৩৭০ ধারা বাতিল করা পর থেকে এখনও পর্যন্ত জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি একেবারে স্বাভাবিক। ভারতের সেই দাবিকে পুরোপুরি মস্যাত করে দেন কুরেশি। একই সঙ্গে তিনি কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রসংঘের মনানবাধিকার পরিষদের সেশনে বেশ কিছু প্রশ্ন তোলেন।

তবে তাতে বিশেষ সুবিধা করতে পারেননি তিনি। ভারতীয় সময় রাত সাড়ে আটটা থেকে বলতে উঠে ভারতের বিদেশ সচিব পাক বিদেশমন্ত্রীর যাবতীয় অভিযোগই খণ্ডন করেছেন। একইসঙ্গে ভারত আগে থেকেই মানবাধিকার পরিষদের সদস্য বেশ কয়েকটি দেশের সমর্থন জোগার করে রেখেছে।