নিজের মন আর প্রেমের কথা জানান আর ভালোবাসার মানুষটিকে প্রকাশ্যে আলিঙ্গন করাও কি অপরাধ? সোজাসুজি সেই প্রশ্ন উত্তর না দিলেও পাকিস্তানের প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয়ে তেমনই এক ঘটনার সাক্ষী থাকল। এক তরুণ  তাঁর ভালোবাসার পুরুষকে নিজের মনের কথা জানিয়েছিল প্রকাশ্যের তারপর সকলের সামনেই তাঁকে জড়িয়ে ধরে। এরপরই বিশ্ব বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্র ও ছাত্রী উভয়কেই বহিষ্কার পর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। 

বৃহস্পতিবারের ঘটনা।  লাহোর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে এক  ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রকে প্রেম প্রস্তাব দেয়। হাটু গেড়ে বসে সেই ছাত্রী প্রেম নিবেদন করেছিল। ছাত্রটি ছাত্রীর প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে তাঁকে জড়িয়ে ধরেছিল। বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেকেই সাক্ষী ছিল ।সেই ছবি মোবাইল ফোনের ক্যামেরায় রেকর্ড করেছিল। 
দেখে নিন সেই ভিডিওটি 

ভিডিওটি নিষেমের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায় নেটদুনিয়ায়। দুই তরুণ তরুণীর ভালোবাসা মন কেড়েনেয় নেটিজেনদের। কিন্তু এই ভিডিওটি কাল হয়ে দাঁড়ায় পড়ুয়াদের কাছে। 

পিটিআই সূত্রের খবর লাহোর বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বিশেষ শাখা শুক্রবার বৈঠক করে। দুই পডুয়ার প্রেম নিবেদেন নিয়ে সেখানে আলোচনা হয়েছে। ডাকা হয়েছিল দুই পড়ুয়াকেই। কিন্তু কমিটির সামনে পড়ুয়ারা হাজির হননি। তারপরই কর্তৃপক্ষ তাদের বিশ্ববিদ্যলয় প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপত্র জানিয়েছে, দুই পড়ুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম ভঙ্গ করেছে। আর সেই কারণ দেখিয়েই তাদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 


বিষয়টি নিয়ে রীতিমত সমালোচনা ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায় । মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে নেটিজেনরা। পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভূট্টোর মেয়ে বখতাওয়ার ভূ্টে জারদারি বিশ্ববিদ্যলয়ের এই পদক্ষেপকে হাস্যকর হবে চিহ্নিত করেছেন। প্রাক্তন ক্রিকেটার ওয়াসিম আক্রামের স্ত্রী শানিয়েরা জানিয়েছেন, সমস্ত শৃঙ্খলা নিয়ম প্রয়োগ করেও বিশ্বে এখনও পর্যন্ত কেই প্রেমকে আটকাতে পারেনি। প্রেমকে কখনও বহিষ্কার করা যায় না। এটি জীবনকে মূল্যবান করে তোলে।