টোকিও অলিম্পিকের বাকি আর ৫০ দিন। তার আগে দেশের অ্যাথলিটদের প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা সহ যাবতীয় বিষয় খতিয়ে দেখতে বৃহস্পতিবার একটি বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীকে যাবতীয় বিষয়ে অবগত করান আধারিকরা। বৈঠকে অতিমারীর সম অ্যাথলিটদের অনুশীলন চালিয়ে যাওয়ার নিরবিচ্ছন্ন ব্যবস্থা, অলিম্পিক কোটা জিততে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া, অ্যাথলিটদের টিকা দেওয়ার এবং যাবতীয় সহায়তা নিয়ে আলোচনা হয়।

গুরুত্বপূর্ণ এই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হয় যে, ২০১৬ অলিম্পিকে দেশ থেকে মোট  ১৯ জন অ্যাথলিট অংশ নিয়েছিলেন। এবার ইতিমধ্যেই ১১টি বিভাগে ১০০ জন যোগ্যতা অর্জন করেছে ও আরও ২৫ জন যোগ্যতা অর্জন করতে পারে। বৈঠকে মোদী বলেন,'জুলাই মাসে একটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আমাদের অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী দলটির সঙ্গে তিনি কথা বলবেন। যাতে তাদের উত্সাহ দেওয়া এবং সমস্ত ভারতীয়দের পক্ষ থেকে তাদের শুভেচ্ছা জানানো হবে। খেলাধুলা আমাদের জাতীয় চরিত্রের কেন্দ্রবিন্দু এবং আমাদের যুবসমাজ খেলাধুলার একটি শক্তিশালী এবং প্রাণবন্ত সংস্কৃতি তৈরি করছে। ১৩৫ কোটি ভারতীয়ের শুভেচ্ছা অলিম্পিকে অংশ নেওয়া আমাদের অ্যাথলিটদের সঙ্গে থাকবে।'

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী পরিষ্কার নির্দেশ দিয়েছেন, অলিম্পিকে অংশ নেওয়া প্রতিটি প্লেয়ার, কোচ, স্টাফ ও সাপোর্টিং স্টাফদের যত দ্রুত সম্ভব করোনা ভাইরাসের টিকাকরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। এছাড়াও আধিকারিকরা জানিয়েছেন,অলিম্পিকে অংশ নেওয়ার সময় ক্রীড়াবিদদের অনুপ্রাণিত করা এবং তাদের ক্রীড়াবিদদের মনোবল বাড়ানোর দিকেও বিশেষ মনোযোগ দেওয়া হবে। প্রতিযোগিতার সময় তাদের বাবা-মা এবং পরিবারের সদস্যদের সাথে ভারতে ফিরে নিয়মিত ভিডিও কনফারেন্সের আয়োজন করা হবে।