রজার ফেডেরারকে রীতিমত আতঙ্কে ফেলে দিলেন ভারতীয় এই তরুণ। রীতিমত হারতে হারতে বাঁচলেন টেনিসের রাজপুত্র। চলতি ইউএস ওপেনের গ্র্যান্ড স্লাম টেনিসে রীতিমত রজার ফেডারকে চমকে দিলেন ভারতের সুমিত নাগাল। তবে শুরু থেকে ভালো খেললেও শেষে গিয়ে খেতাব জয় করেন রজারই। সুমিত নাগালকে ৪-৬, ৬-১, ৬-২, ৬-৪ ফলে হারিয়ে ইউএস ওপেনের দ্বিতীয় রাউন্ডে জায়গ করে নেন তিনি। 

বিশ্বের ১৯০ নম্বরে থাকা নাগাল নিজের সীমিত অভিজ্ঞতা সত্ত্বেও মুশকিলে ফেলেছিলেন ফেডেরারকে। ২২ বছরের এই তরুণ অসাধারন কোর্ট কভারেজ করেছিলেন। এবং শুরু থেকেই দুর্দান্ত স্পিনিং শটের মাধ্যমে বিপদে ফেলেছিলেন রজারকে। রজারের সামনে তিনি এতটাই কঠিন প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন যে ২০০৮ থেকে নিউ ইয়র্কের হয়ে খেলা বিশ্বের এক নম্বর টেনিস খেলোয়াড় ফেডেরারও খেলার প্রথম সেটেই ১৯টি অকারন ভুল করে ফেলেন। তবে শেষ রক্ষা করতে পারলেন না  নাগাল। শুরু থেকেই অসাধারন খেললেও কিছুক্ষন খেলার পরেই পা স্থির থাকে না নাগালের। টলমল করতে থাকেন তিনি। আর এই সুযোগ কে ছেড়ে দেননি নিউ ইয়র্ক চ্যাম্পিয়ন ফেডেরার। এই সুযোগ কাজে লাগিয়েই নাগালের ওপর  চাপ সৃষ্টি করেন তিনি এবং শেষে জিতেও যান। 

তবে মাত্র ২২ বছর বয়সের এই তরুনের প্রতিভায় স্তম্ভিত ফেডেরার নিজেও। তাঁর সেই আতঙ্ক প্রকাশ পেল খেলার শেষে টেনিস কোর্টে হওয়া ইন্টারভিউতেও। তবে নিজের ভুলগুলিকে খুবি সাবলিলভাবে স্বীকার করলেন রজার। তাঁর সঙ্গে বললেন, নিজের স্বাভাবিক খেলা খেলতে পারেননি তিনি। ওই তরুনের সামনে নিজেকে বয়জ্যেষ্ঠ মনে হয়েছিল ফেডেরারের। তাসত্ত্বেও থেমে থাকেননি তিনি। জয় তো পেয়েছেন সঙ্গে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যে আজকের ভুলগুলি পরবর্তী ম্যাচ থেকে শুধরে নেবেন তিনি।