আজকের সময়ে, মোবাইল ফোন ছাড়া জীবন কল্পনা করা যায় না। তবে ঠিক ২৫ বছর আগে, লোকেরা মোবাইল ফোন ছাড়াই তাঁদের কাজ চালাত। মোবাইল ফোনটি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম টেলিকম বাজারে পরিণত হয়েছে। ১৯৯৫ সালের ৩১ জুলাই আজ থেকে ঠিক ২৫ বছর আগে ভারতে মোবাইল বিপ্লবের ভিত্তি স্থাপন করা হয়েছিল। ২৫ বছর আগের এই দিনেই পশ্চিমবঙ্গের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু , তৎকালীন কেন্দ্রীয় টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী সুখ রাম এর সঙ্গে প্রথম মোবাইল কলে কথা বলেছিলেন। এক নজরে দেখে নিন ভারতে প্রথমবারের মতো মোবাইল কল সম্পর্কিত বিষয়গুলি।

ভারতে মোবাইল পরিষেবা ২৫ বছর আগে ৩১ জুলাই ১৯৯৫-এ শুরু হয়েছিল। সেদিন ভারতে প্রথম থেকে মোবাইল কল করা হয়েছিল। এরপর থেকেই দেশে বিপ্লবের রূপ নিয়েছিল মোবাইল পরিষেবা। সেই সময়ে, আউটগোইং কলগুলির পাশাপাশি  ইনকামিং কলের জন্যও টাকা লাগত। কলকাতা থেকে দিল্লিতে প্রথম করা হয়েছিল দেশের প্রথম মোবাইল কলিং। জ্যোতি বসু নয়াদিল্লির সঞ্চার ভবনে কলকাতার রাইটার্স বিল্ডিং থেকে এই ফোন কল করা হয়েছিল। ভারতের প্রথম মোবাইল অপারেটর সংস্থা ছিল মোদী টেলস্ট্র্রা এবং এর পরিষেবাটি মোবাইল নেট নামে পরিচিত। 

এই নেটওয়ার্ক থেকেই প্রথম মোবাইল কল করা হয়েছিল। মোদী টেলস্ট্র্রা ছিলেন মোদী গ্রুপ অফ ইন্ডিয়া এবং অস্ট্রেলিয়ার টেলস্ট্রার একটি যৌথ উদ্যোগ। এই সংস্থাটি ৮ টি সংস্থার মধ্যে একটি ছিল যা দেশে সেলুলার পরিষেবা সরবরাহের জন্য লাইসেন্সপ্রাপ্ত ছিল। ১৯৯৫ সালের পর থেকে ভারতে টেলিযোগাযোগ দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়েছে। এটা বিশ্বাস করা হয় যে মোবাইল পরিষেবা চালু হওয়ার ৫ বছরের মধ্যে দেশে মোবাইল গ্রাহকদের সংখ্যা ৫০ লক্ষে পৌঁছেছিল। 

২০১৫ সালের মে মাসের শেষে, দেশে মোট টেলিফোন সংযোগের সংখ্যা একশো কোটি ছাড়িয়েছে। কিন্তু এর পরেরদিকে এই সংখ্যাটি আরও বেড়েছে। ভারতে মোবাইল পরিষেবা আরও বেশি লোকের কাছে পৌঁছাতে খানিকটা সময় নিয়েছিল। আর এর অন্যতম কারণ ছিল ব্যয়বহুল কল চার্জ।  মোবাইল নেটওয়ার্কের শুরুতে আউটগোয়িং কলগুলির পাশাপাশি, ইনকামিং কলগুলিও চার্জ দিতে গত। প্রথমদিকে, প্রতি আউটগোইং কলে প্রতি মিনিটে ১৬ টাকা পর্যন্ত চার্জ করা হত।