টিকটক নিষিদ্ধ করার পর থেকেই গ্রাহকদের অবস্থা যেন লেজে-গোবরে হয়েছে। একদিকে লকডাউন আর তার উপরে বিনোদনের  রসদ হিসবে সকলেই বেছে নিয়েছিল জনপ্রিয় অ্যাপ টিকটক-কে। কিন্তু টিকটক সহ ৫৯ টি চিনা অ্যাপ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার। তারপর থেকেই মাথায় হাত পড়েছে টিকটক ব্যবহারকারীদের। বেশ কয়েকদিন ধরেই প্লে স্টোরে ১ নম্বর থেকেই অনেকটাই নিচের দিকে নেমে এসেছিল টিকটক। একের পর এক অভিযোগ উঠে এসেছে  টিকটকের বিরুদ্ধে। অ্যাপের রিভিডও বেশ কিছুদিন ধরেই ভাল যাচ্ছিল না। 

আরও পড়ুন-কেন চিনের ৫৯টি অ্য়াপ নিষিদ্ধ করল কেন্দ্রীয় সরকার, জেনে নিন বিস্তারিত...

টিকটকের দিন শেষ। কিন্তু টিকটক প্রেমীদের জন্য আশার আলো দেখাচ্ছে বেশ কিছু দেশিয় অ্যাপ। এবার এই দেশিয় অ্যাপগুলির মাধ্যমেই নিজেদের সুপ্ত প্রতিভাকে আবারও দেখানোর সুযোগ পাবেন তারা। জেনে নিন কী কী রয়েছে সেই তালিকায়। সবার আগেই রয়েছে মিত্রোঁ নামের দেশিয় অ্যাপটি। এছাড়াও  রোপোসো, চিঙ্গারি, ডাবস্ম্যাশ-এ দিকে ঝুঁকছে ব্যবহারকারীরা।

আরও পড়ুন-গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্যে গোপনে নজরদারি চালাচ্ছিল টিকটক, ফাঁস করল অ্যাপল...

মিত্রোঁঃ দেশিয় অ্যাপগুলির মধ্যে এই অ্যাপটি সবথেকে বেশি জনপ্রিয় হয়েছে। যা ইতিমধ্যেই ৫ মিলিয়ন মানুষ ডাউনলোড করে ফেলেছে।  বর্তমানে তার রেটিং ৪.৭।  টিকটক ব্যান হবার পর থেকেই এই দেশিয় অ্যাপের জনপ্রিয়তা আরও বেশি বেড়ে যায়। বর্তমানে এই অ্যাপের চাহিদা তুঙ্গে। এটিই দেশিয় অ্যাপের মধ্যে সর্বাধিক জনপ্রিয় হয়েছে, যা বিশ্বজুড়ে মাইলস্টোন স্থাপন করেছে। খানিকটা টিকটকের মতোনই এই অ্যাপ। ছোট ছোট ভিডিও ফিল্টারের মধ্যে এডিট করে মিত্রোঁ প্ল্যাটফর্মে শেয়ার করা যায়। এর পাশাপাশি টিকটকের মতোই মাল্টিমিডিয়া কনটেন্ট রয়েছে এই দেশিয় অ্যাপে। তবে সব ফোনে এই মিত্রোঁ অ্যাপ কাজ করবে না। শুধুমাত্র অ্যানড্রয়েড ফোনেই কাজ করবে এই অ্যাপ। গুগল প্লে স্টোরে থেকেই ডাউনলোড করা যাবে এই অ্যাপটি। মাত্র ৮ এমবি-র কম জায়গা নিয়ে থাকে এই মিত্রোঁ অ্যাপ।


রোপোসোঃ এই দেশিয় অ্যাপটিও ভিডিও শেয়ার করার  একটি প্ল্যাটফর্ম। যে কোনও অ্যানড্রয়েড ফোনেই কাজ করবে এই অ্যাপ। ১০ টি ভাষায় এই অ্যাপটি ব্যবহার করা যাবে।  যেমন, হিন্দি, ইংরাজী, তামিল, তেলেগু, কন্নড়, গুজরাটি, পাঞ্জাবি, মারাঠি, বাংলা, মালায়ালম, উড়িয়া, এবং আসামি ভাষায় ব্যবহার করতে পারবেন এই অ্যাপ। ইতিমধ্যেই ৫০ মিলিয়ন মানুষ এই অ্যাপটি ডাউনলোড করেছেন। টিকটকের অলটারনেটিভ ভাবে এই অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন।


চিঙ্গারিঃ চিঙ্গারিও অনেকটা টিকটকের সংস্করণ। যা তৈরি করেছেন ছত্রিশগড়, ওড়িশা, কর্ণাটকের আইটি প্রফেশনাল এবং ডেভেলপরার। ২০১৮ সালে নভেম্বরে গুগল প্লে-তে অ্যাপটিকে ছাড়া হয়েছিল। ২৮ জুন পর্যন্ত সারা দেশে এই অ্যাপটির জনপ্রিয়তা বেড়েছে।


বোলো ইন্ডোঃ এই দেশিয় অ্যাপটিও নিজেদেরকে টিকটক ইন্ডিয়া বলে প্রকাশ করে থাকে। ছোট ভিডিও  তৈরি ও শেয়ার করতে এই অ্যাপটিও ব্যবহার করা যেতে পারে। হিন্দি, তামিল, তেলেগু, কন্নড়,  পাঞ্জাবি, মারাঠি, বাংলা,  উড়িয়া ভাষায়  এই অ্যাপটি ব্যবহার করা যাবে।