রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি সোমবার এক বিশেষ অনুষ্ঠানে মুম্বইয়ের মাইক্রোসফ্টের ফিউচার ডিকোডেড সিইও সত্য নাদেলার সঙ্গে এটি নিয়ে আলোচনা করেছিলেন তিনি। সেই আলোচনায় তিনি বলেছেন, "প্রতিটি ভারতীয় ব্যবসায়ী ধীরুভাই আম্বানি বা বিল গেটস হওয়ার ক্ষমতা রাখেন। আমাদের দেশের প্রতিটি ব্যবসায়ীর মধ্যে এক বিশেষ সক্ষমতা রয়েছে। আমরা অর্থনীতিতে বিশ্বের শীর্ষ ২০টি দেশগুলির মধ্যে অন্তর্ভুক্ত থাকব, এ বিষয়ে আমার কোনও সন্দেহ নেই। সন্দেহ রয়েছে আমরা এই লক্ষ্যটি ৫ বছরে অর্জন করব না ১০ ​​বছর সময় লাগবে!"

আরও পড়ুন- মেলানিয়া-র শুভ্র সাদা পোশাক নজর কেড়েছে, নেট দুনিয়ার ভাইরাল পোশাক বিতর্ক

মুকেশ আম্বানি এই বিষয়ে আরও বলেছেন, গত দুই দশকে দেশের জিডিপি ৩০০ বিলিয়ন ডলারের থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩ ট্রিলিয়ন ডলারে। দেশের মোবাইল নেটওয়ার্কগুলি আগের চেয়ে দ্রুত কাজ করছে। তাদের ক্রমবর্ধমান ক্ষমতার কারণে বদলাচ্ছে দেশের উন্নতির ধারা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২০১৪ সালে আমাদের ডিজিটাল ইন্ডিয়ার স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন। তার পর থেকে, ৩৮ কোটি মানুষ জিও-এর ৪ জি প্রযুক্তি গ্রহণ করেছে। জিওর আগে ডেটা গতি ছিল ২৫৬ কেবিপিএস (প্রতি সেকেন্ডে কিলোবাইট), যা এখন ২১ এমবিপিএস (প্রতি সেকেন্ডে মেগাবাইট)। ভারত বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ডিজিটাল সমাজে পরিণত হওয়ার লক্ষ্যে এগিয়ে চলেছে ভারত।

আরও পড়ুন- আবারও নোটবন্দী, বাতিল হতে চলেছে ২০০০ টাকার নোট

মাইক্রোসফ্টের ফিউচার ডিকোডেড সিইও সত্য নাদেলা-কে তিনি জানিয়েছেন,  আগামী প্রজন্ম এক নতুন ভারত দেখবে। একইসঙ্গে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যিনি এখন ভারত সফর করেছেন, তিনি আমেরিকার প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি জিম কার্টার, বিল ক্লিনটন এবং বারাক ওবামা ভারতবর্ষ-কে যেভাবে দেখে গেছেন তার চেয়ে এই চিত্র আলাদা হবে।