মার্চ মাস থেকে পর্যটন শিল্পে ধ্বস। করোনার জন্যে লকডাউনে গিয়েছিল গোটা দেশ। এমন পরিস্থিতিতে সংক্রমণ এড়াতে সবার আগে কোপ পড়েছিল পর্যটনে। কবে আবার ঘর ছেড়ে বাইরে বেরবেন সাধারণ মানুষেরা, তা নিয়ে স্পষ্ট ধারণার ছিল অভাব। ফলে বিস্তর ক্ষতির মুখ দেখতে হয় পর্যটন সংস্থাগুলোকে। তবে লকডাউনের পঞ্চমদফাতেই মিলল স্বস্তির খবর। ছন্দে ফিরছে দেশ।

আরও পড়ুনঃ করোনা-রোধী শক্তি বাড়াতে দাওয়াই 'মিষ্টি মুখ', কলকাতায় বিকোচ্ছে ইমিউনিটি সন্দেশ

তাল মিলিয়ে একের পর এক সেক্টর খোলার মুখে। এমনই সময় বড় সিদ্ধান্ত নিল মন্দারমণি। জানিয়ে দেওয়া হল সোমবার থেকেই পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হবে সমুদ্র সৈকতের পাশে থাকা ১২০টি হোটেল। তবে নিয়ম মেনে চলবে ভ্রমণকারীদের হোটেলে রাখার কাজ। সম্প্রতি বৈঠক করে এমনই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে মন্দারমণিতে এবার করা যাবে হোটেল বুকিং। শুরু হয়েছে স্পট ও অনলানে বুকিংও। 

আরও পড়ুনঃ পোস্ট অফিসের এই স্কিমে মিলবে দ্বিগুন টাকা, লকডাউনে নিজের সেভিংস বাড়াতে জেনে নিন এখনই

তবে পর্যটনের ক্ষেত্রে সুখবর মিললেও কোনও ঝুঁকি নিতে নারাজ হোটেল কতৃপক্ষেরা। মাত্র ৫০ শতাংশ রুমেই করা যাবে বুকিং। পাশাপাশি প্রতিটা পর্যটক হোটেল ছেড়ে বেরনোর পর ঘর করা হবে স্যানিটাইজার। দেখা হবে পর্যটকদের স্বাস্থ্যের অবস্থাও, জ্বর, সর্দি, কাশি থাকলে গহোটেলে প্রবেশ নিষেধ। তবে এখনও সবুজ সংকেত মেলেনি দিঘা থেকে। শীর্ঘই এই নিয়ে হবে বৈঠক। জানিয়ে দেওয়া হবে কবে থেকে হোটেল খুলবে দিঘাতে। যদিও সাধারণ মানুষ এখন কতটা ভ্রমণমুখী, তা বোঝা যাবে হোটেলের দরজা খোলার পরই।